যে গুহায় ধ্যান করেছেন মোদি, সেখানে ছিল আধুনিক ব্যবস্থা

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

কেদারনাথে যে গুহায় ধ্যানে বসে সবাইকে চমকে দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তবে জানা গেছে, সেই গুহারও রয়েছে বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য। যা চমকে দেওয়ার মতোই। কারণ সেই গুহা আর পাঁচটা গুহার থেকে একদম আলাদা।

সাধারণভাবে সাধুরা যে ধরনের গুহায় ধ্যান করেন, মোদির গুহা ছিল তার থেকে একদম আলাদা। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।

সেই তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, গত শনিবার বিকেল থেকে গতকাল রবিবার সকাল পর্যন্ত যে গুহায় ধ্যান করেছেন মোদি, সেখানে ওয়াইফাই পরিষেবা ছিল। পাশাপাশি গুহার মধ্যে ছিল একটি টেলিফোনও। বিলাসবহুল শৌচাগারেরও ছিল তার জন্য। এমনকী জামাকাপড় টাঙিয়ে রাখার জন্য হ্যাঙারের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছিল।
তিনি যতক্ষণ এখানে ছিলেন ততক্ষণ কোনো পুণ্যার্থীকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। এই নিয়ে দু’‌বছরে চারবার এখানে এলেন প্রধানমন্ত্রী। ৮ ফুট বাই ৯ ফুটের এই গুহায় প্রবেশের দরজার উচ্চতা পাঁচ ফুটের। এই গুহায় সারারাত ধ্যান করে গতকাল রবিবার সকালে সেখান থেকে বের হয়ে যান মোদি।

উল্লেখ্য, শনিবার সকালে কেদারনাথে পা রাখেন মোদি। তারপর মন্দিরে পূজা দিয়ে অঞ্চলের উন্নয়নের প্রকল্পগুলির অগ্রগ্রতির রিপোর্ট খতিয়ে দেখেন। তারপর হেঁটে গুহায় পা রাখেন তিনি। কেদারে ভক্তদের উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে বদরীনাথে পাড়ি দেন তিনি। বেলা সাড়ে দশটা নাগাদ বদরীনাথে পৌঁছান মোদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *