জননেতা এম এ হান্নানের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

চট্টগ্রাম মহানগর

Sharing is caring!

জননেতা এম এ হান্নানের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে বঙ্গবন্ধুর পক্ষে প্রথম স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠ করা এম এ হান্নান ছিলেন তৎকালীন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

১৯৭৪ সালের ১১ জুন কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে এক সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হয়ে পরের দিন ১২ জুন ফেনীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য ভূমিকা রাখা এম এ হান্নান ভাষা আন্দোলনেও অংশ নিয়েছিলেন৷

১৯৬৪ সালে চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক নির্বাচিত হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন এবং ১৯৬৮ সালে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা বিরোধী আন্দোলনে তিনি অংশ নেন। ১৯৬৮ সালে তিনি চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ১৯৭০ সালে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এবং পরে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

১৯৭১ সালে অসহযোগ আন্দোলন চলাকালে তিনি ২৪ মার্চ চট্টগ্রাম বন্দরে ‘সোয়াত’ জাহাজ থেকে পাকিস্তানিদের অস্ত্র খালাসের বিরুদ্ধে ছাত্র শ্রমিক জনতাকে নিয়ে প্রতিরোধ সৃষ্টি করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রেরিত স্বাধীনতার ঘোষণা কালুরঘাট স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র থেকে পাঠ করেন। পরে তিনি আগরতলা যান এবং সেখানে হরিনা যুব শিবির প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখেন। ২০১৩ সালে মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকার জন্য স্বাধীনতা পুরষ্কার পেয়েছিলেন মরণোত্তর।

শ্রমিক রাজনীতিতেও সক্রিয় ছিলেন এম এ হান্নান। বিভিন্ন মেয়াদে তিনি বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ রেল শ্রমিক লীগের সভাপতি, চট্টগ্রাম জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৭৪ সালের ১১ জুন চৌদ্দগ্রামে এক সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হয়ে ফেনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১২ জুন মৃত্যু বরণ করেন তিনি। আজ জননেতা এম এ হান্নানের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *