কাপ্তাই ঘুরতে গিয়ে কর্ণফুলীতে ডুবে ভাগিনার মৃত্যু,মামা নিখোঁজ

চট্টগ্রাম মহানগর

Sharing is caring!

কাপ্তাইয়ে ঘুরতে গিয়ে কর্ণফুলী নদীতে দুজন পর্যটক ডুবে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে৷ কাপ্তাইয়ের শীলছড়ি এলাকায় বৃহস্পতিবার (১৩ মে) বিকেল তিনটা বাজে এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ঢুবে যাওয়া একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা গেলেও রাত ১১ টা পর্যন্ত দফায় দফায় তল্লাশি চালিয়েও অপরজনের খোঁজ পাওয়া যায়নি। নদীতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে যাওয়া দুই জনের নাম হামেদ হাসান আদর(২৯) ও আনোয়ারুল আরেফিন অনু (১৯)। তারা দুজনই একই পরিবারের সদস্য, সম্পর্কে মামা ভাগনে।

জানা গেছে চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকা থেকে এই পরিবারের ১২ জন সদস্য মিলে কাপ্তাই বেড়াতে যান। দিনব্যাপী বেড়ানোর শেষ দিকে বিকেলে নদীতে গোসল করতে নামেন তাদের কয়েকজন। এদের মধ্যে দুজন পানিতে ডুবে যান। পরে ভাগিনা আরেফিনকে মূমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে চন্দ্রঘোনা খ্রিস্টিয়ান মিশন হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে মামা আদরকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ হওয়া আদরকে উদ্ধার করার জন্য বিকেল থেকে নৌবাহিনীর ডুবুরি দল এবং কাপ্তাই ফায়ার ব্রিগেড দফায় দফায় অভিযান চালালেও রাত ১১ টা পর্যন্ত আদরের খোঁজ মেলেনি।

হামেদ হাসান আদর ও আনোয়ারুল আরেফিন অনু সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পিএস মুহাম্মদ ওসমান গনির ভাই ও ভাগনে।

উদ্ধার হওয়া আনোয়ারুল আরিফের লাশ পরিবারের অনুরোধে ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই বিষয়ে কাপ্তাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নুরুল আলম বলেন, ‘উদ্ধার হওয়া আনোয়ারুল আরিফের লাশ পরিবারের অনুরোধে ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টার সময় লাশ নিয়ে পরিবারের সদস্যরা চট্টগ্রামের হালিশহরের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন।’

দূর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছিলেন কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশ্রাফ আহমেদ রাসেল, কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মোহাম্মদ নুর এবং ওসি (তদন্ত) মো. নুরুল আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *