ইরানকে দমাতে সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

ইরানের সঙ্গে টানটান উত্তেজনার মধ্যেই মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত এক হাজার সেনাসদস্য পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।গত সোমবার রাতে দেশটির ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান নতুন করে সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেন। তিনি বলেছেন, ইরানের ‘বৈরী আচরণের’ প্রতিক্রিয়ায় মার্কিন বাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে।

ওমান উপসাগরে তেলবাহী দুটি ট্যাংকারে বিস্ফোরণের ঘটনার জন্য দায়ী ইরান—যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি এই অভিযোগ উত্থাপন করেছে। এই দাবির পক্ষে যুক্তরাষ্ট্র ছবিও প্রকাশ করেছে।

গতকাল ইরান ঘোষণা করেছে, ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তারা পারমাণবিক কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা দমিয়ে রাখবে না। আন্তর্জাতিক পরাশক্তিগুলোর সঙ্গে চুক্তি অনুসারে ২৭ জুনের মধ্যে তাঁরা নিজেদের ইউরেনিয়াম মজুত রাখার সীমাও লঙ্ঘন করবে।

সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেওয়ার কথা জানিয়ে এক বিবৃতিতে প্যাট্রিক শানাহান বলেন, ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র সংঘাতে যেতে চায় না। তবে মার্কিন স্বার্থ রক্ষায় এই অঞ্চলে নিয়োজিত সামরিক বাহিনীর নিরাপত্তা ও কল্যাণের জন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হলো। তিনি আরও জানান, সামরিক বাহিনী পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক নজরে রাখবে। তবে ঠিক কোথায় এই অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হবে, সে সম্পর্কে তিনি কোনো তথ্য দেননি

গত বৃহস্পতিবার নরওয়ের মালিকানাধীন ফ্রন্ট আলটেয়ার নামের একটি ট্যাংকারেও বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। যুক্তরাষ্ট্র এই হামলাগুলোসহ গত মে মাসে হরমুজ প্রণালির বাইরের চারটি হামলার ঘটনায় ইরানকে দায়ী করেছে। তবে ইরান এসব অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন’ দাবি করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *