পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাটিং বিপর্যয়ে নিউজিল্যান্ড

খেলাধুলা

Sharing is caring!

বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করতে পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামে নিউজিল্যান্ড।চলতি বিশ্বকাপে ৩৩তম ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ড দলপতি কেন উইলিয়ামসন।
শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কিউইদের সংগ্রহ ২৩.৩ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৮০ রান।উইকেটে আছেন কেন উইলিয়ামসন(৪০)এবং জিমি নিশাম(১৭)।

বুধবার (২৬ জুন)বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় এজবাস্টন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ম্যাচটি হওয়ার কথা থাকলেও বৃষ্টির কারণে নির্দিষ্ট সময়ে টস করা সম্ভব হয়নি।ম্যাচের আগে বৃষ্টি হওয়ায় মাঠ ভেজা থাকায় দুপুর সাড়ে তিনটায় মাঠ পরিদর্শনে যান আম্পায়াররা।পরে ম্যাচ শুরু হয় সাড়ে চারটায়।কোন ওভার কাটা পড়েনি।

ম্যাচের শুরুতে দুর্দান্ত বোলিংয়ে প্রথম বলে উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ আমির।একের পর এক উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েন কিউই ব্যাটসম্যানরা।

পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে দ্রুত দুই ওপেনারকে হারিয়ে নিউজিল্যান্ড। দুটি উইকেটই নিয়েছেন পাকিস্তানের পেসাররা
এজবাস্টনে মাথার ওপর কালো মেঘ দেখেও কেন উইলিয়ামসন কেন আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিলেন? এ প্রশ্নটা উঠতেই পারে। তার আগে আবার একচোট বৃষ্টিও হয়েছে। খেলা নির্ধারিত সময়ে মাঠে না গড়ালেও কোনো ওভার কাটা পড়েনি। তবে পেসবান্ধব কন্ডিশনে নিউজিল্যান্ডের ওপেনিং জুটিও বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি। প্রতিপক্ষের ইনিংসে নিজের প্রথম বলে উইকেট নেওয়াকে মোহাম্মদ আমির যে প্রায় অভ্যাসে পরিণত করেছেন!

সেমিতে ওঠার আশা জিইয়ে রাখতে জয়ের বিকল্প নেই—এ সমীকরণ মাথায় নিয়ে আগে বোলিং করছে পাকিস্তান। পেসবান্ধব কন্ডিশনেও অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ শুরুটা করিয়েছেন স্পিনার মোহাম্মদ হাফিজকে দিয়ে। প্রথম বলেই তাঁকে চার মেরে দারুণ শুরু করেছিলেন কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল। কিন্তু পরের ওভারেই কন্ডিশনের ফায়দা তুলে নেন আমির। তাঁর প্রথম বলেই বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন গাপটিল। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৩ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের স্কোর ৪ উইকেটে ৪৬। ব্যাট করছেন উইলিয়ামসন (২৩) ও জিমি নিশাম (০)।

পেসার শাহিন আফ্রিদির গতির কাছে হার মেনে স্লিপে ক্যাচ দেন মানরো (১২)। নিজের পরের ওভারে রস টেলরকেও গতির আগুনে পুড়িয়েছেন আফ্রিদি। তাঁর লেংথ বলে খোঁচা মারতে গিয়ে প্রথম স্লিপে ক্যাচ দিয়েছিলেন টেলর। ডান দিকে ডাইভ দিয়ে অবিশ্বাস্য দক্ষতায় এক হাতে ক্যাচটি ধরেন অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক সরফরাজ। আমিরের তুলনায় আফ্রিদির গতি সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে কিউইদের। লাথামকেও উইকেটের পেছনে ক্যাচে পরিণত করেছেন আফ্রিদি। নিউজিল্যান্ডের পতন হওয়া ৪ উইকেটের ৩টি নিয়েছেন আফ্রিদি।

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড স্কোয়াড: কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), মার্টিন গাপটিল, হেনরি নিকোলস, রস টেইলর, টম লাথাম (উইকেটরক্ষক), কলিন মুনরো, টম ব্লান্ডেল, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, মিচেল স্যান্টনার, জিমি নিশাম, ইশ সোধি, ম্যাট হেনরি, লুকি ফার্গুসন, টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট।

বিশ্বকাপে পাকিস্তান স্কোয়াড: সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), বাবর আজম, ফখর জামান, হারিস সোহেল, হাসান আলী, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম-উল-হক, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ হাসনাইন, শাদাব খান, শাহীন শাহ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, আসিফ আলী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *