ইমান রক্ষার জন্য বলিউড কে বিদায় জানালেন জায়রা ওয়াসিম

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

কিশোরী বলিউড অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম বলিউড কে বিদায় জানালেন। তিনি বলেছেন, নিজস্ব পেশার ফলে ধর্ম ও বিশ্বাসের সাথে তার যে সম্পর্ক সেটা নষ্ট হচ্ছিল এবং এর ফলে তিনি মোটেও পরিতৃপ্ত ছিলেন না।

মেগা-তারকা আমির খান অভিনীত ‘দঙ্গল’ ও ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ ছবিতে অভিনয় করেই আলোচিত হয়ে ওঠেন কাশ্মীরে জন্ম নেওয়া ভারতীয় এই অভিনেত্রী।খুব অল্প সময়ের মধ্যে গোটা ভারতে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি।জায়রা ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে অভিনয় ছেড়ে দেওয়ার কথা জানালে সেটি সাথে সাথেই সোশাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে পড়ে।

জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী এই অভিনেত্রী তাতে লিখেছেন, “আমি হয়তো এখানে (বলিউড) পুরোপুরি ঠিক আছি। কিন্তু আমি এখানকার মানুষ নই।”

“পাঁচ বছর আগে আমি একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যা আমার জীবন বদলে দিয়েছে। বলিউডে পা দেওয়া মাত্রই আমার জন্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তার দরজা খুলে গিয়েছিল।

আমি জনগণের কাছে আকর্ষণের কারণ হয়ে উঠতে শুরু করি। আমাকে তরুণদের জন্যে আদর্শ মডেল হিসেবেও তুলে ধরা হতে থাকে।জায়রা ওয়াসিম আরো লিখেছেন, “কিন্তু আমি কখনো এরকম হতে চাইনি। সাফল্য বা ব্যর্থতাকে আমি কখনো এভাবে দেখিনি। আর এটা আমি এখন বুঝতে শুরু করেছি।জায়রা ওয়াসিমের বয়স এখন ১৮। তার অভিনয় জীবন মাত্র পাঁচ বছরের, কিন্তু এর মধ্যেই তিনি জনপ্রিয়তার তুঙ্গে পৌঁছে যান।

তার দীর্ঘ পোস্টে তিনি লিখেছেন, “আমার এই পরিচয় নিয়ে আমি খুশি নই। যেন আমি অন্য কেউ হয়ে ওঠার চেষ্টা করছিলাম যা আমি নই।এখানে আমি প্রচুর ভালবাসা ও সমর্থন পেয়েছি, প্রশংসাও পেয়েছি। কিন্তু একই সাথে এটি আমাকে অজ্ঞানতার পথে নিয়ে যাচ্ছিল।”

তিনি মনে করেন যে এর ফলে অবচেতন মনেই তিনি তার ‘ইমান’ (ধর্মবিশ্বাস) থেকে দূরে সরে যাচ্ছিলেন।এধরনের পরিবেশে কাজ করতে করতে দেখলাম যে এটা আমার ইমানে বিঘ্ন ঘটাচ্ছে, ধর্মের সাথে আমার সম্পর্কের ক্ষেত্রে হুমকি হয়ে উঠেছে।তিনি লিখেছেন, এতো ছোট জীবনে এই বিশাল লড়াই আমি লড়তে পারব না। সুতরাং, সিদ্ধান্ত নিলাম।

জায়রা ওয়াসিম তার ফেসবুকে পোস্টে লিখেছেন, ইমান অটুট রাখতে তিনি নিজের আত্মার সাথে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করেছেন এবং এতে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন।

“শুধু একবার নয়, শত শতবার চেষ্টা করেও আমি তাতে জিততে পারিনি,” জানিয়েছেন জায়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *