নিজের ভুল স্বীকার করলেও অনুতপ্ত নন ধর্মসেনা

খেলাধুলা

Sharing is caring!

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনালে শেষ ওভারের চতুর্থ বলে আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার দেওয়া সিদ্ধান্তের বিতর্কের রেশ যেন শেষই হচ্ছেনা। অবশ্য এই রেশ এত তাড়াতাড়ি থামারও কথা নয়। ম্যাচটা যে বিশ্বকাপ ফাইনাল।

ফাইনাল ম্যাচের শেষ ওভারের চতুর্থ বলে আম্পায়াররা ইংল্যান্ডকে পাঁচ রানের জায়গায় দিয়ে দেন ছয় রান। এই ভুল চোখ এড়ায়নি সাবেক আম্পায়ার সাইমন টাফেলেরও, তিনি এটা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার এই একটা ভুলের কারণে বিশ্বকাপ হাতছাড়া হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের।

সেই ম্যাচে শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ব্যাটে বল লাগিয়ে দুই রানের জন্য দৌড়ান বেন স্টোকস। অন্যদিকে বাউন্ডারি লাইনের একটু সামনে থেকে বল থ্রো করেন মার্টিন গাপটিল। সেই থ্রো থেকে বল বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারির বাইরে চলে যায়। এতে ইংল্যান্ডকে ছয় রান দেন আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা। যার ফলে ইংল্যান্ডের চাপ আরও সহজ হয়ে যায়। যদিও শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি টাই হয়। খেলা গড়ায় সুপাওভারে। সেখানেও টাই হলে বাউন্ডারি ব্যবধানে ইংল্যান্ড জিতে যায় ম্যাচটি।

তবে ম্যাচ শেষ হওয়ার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে সবাই ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন।

এইবার সেই ‘বিতর্কিত’ সিদ্ধান্ত নিয়ে মুখ খুললেন শ্রীলঙ্কার আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা। বিশ্বকাপ ফাইনালের একসপ্তাহ পেরিয়ে যাওয়ার পর সানডে টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ধর্মসেনা নিজের ভুল স্বীকার করেন। তবে এই ভুলে তিনি অনুতপ্ত নন।

সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘টিভি রিপ্লে দেখে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়তো সহজ। কিন্তু রিপ্লে দেখার কোনো সুযোগ ছিল না আমাদের কাছে। আমি মানছি সিদ্ধান্ত ভুল ছিল। কিন্তু তা নিয়ে আমার কোনো অনুশোচনা নেই।’

ধর্মসেনা আরও বলেন, ‘মাঠে বসে টিভি রিপ্লে দেখার কোনো সুযোগ নেই। টিভি আম্পায়ারের কাছে যাওয়ার কোনো সুযোগ ছিল না আমাদের কাছে। আমি লেগ আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনা করেই এই সিদ্ধান্ত জানাই। আমি যে লেগ আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনা করেছিলাম সেটা অন্য আম্পায়াররা এবং ম্যাচ রেফারিও শুনেছিলেন।’

আইসিসির নিয়ম (১৯.৮) অনুযায়ী ওভার থ্রোর বাউন্ডারির ক্ষেত্রে ফিল্ডার বল ছাড়ার মুহূর্তে ব্যাটসম্যানরা পরস্পরকে ক্রস করলে তবেই তাদের ফিল্ড রান যোগ হবে ওভার-থ্রো’র বাউন্ডারির সঙ্গে।

টিভি রিপ্লেতে স্পষ্ট দেখা যায়, গাপটিল বল থ্রোয়ের সময় স্টোকস ও আদিল রশিদ দ্বিতীয় রানের জন্য পরস্পরকে ক্রস করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *