বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িকতা পৃথিবীর বুকে বিরল : ড.মনওয়ার সাগর

প্রচ্ছদ মতামত

Sharing is caring!

সারা পৃথিবীর মানুষ জানে প্রিয়া সাহা একটা অসম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে কি বলেছে? ডোনাল ট্রাম্পকে সে কি বলেছে ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট ও সোস্যাল মিডিয়ায় তা প্রকাশ হয়েছে। আজ আবার তার নতূন একটি সাক্ষাতকার শুনে রীতিমত বিস্মিত হলাম। তিনি একযুগ আগের পরিসংখ্যানের ক্রমবর্ধমান হার অনুযায়ী যে পরিমাণ লোক বৃদ্ধি পাওয়ার কথা তা হয়নি বলেই সেটাকে মিসিং বা গুম বলেছেন। বাস্তবের সাথে যার কোনো সাযূজ্যতা নেই। সাংবাদিক তাকে প্রশ্ন করলেন – এই লোকগুলো কোথায় গেছে? তিনি কৌশলে এড়িয়ে গেছেন। তিনি দাবী করেছেন – তার গ্রামেও অনেক পরিবার নেই। আমার প্রশ্ন হলো, যে পরিবার গুলো মিসিং বা গুম বলে তিনি দাবী করেছেন তাদের খুঁজে পাওয়ার জন্য তিনি বা তার সংগঠন হিন্দু বৌদ্ধ,খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ কি কখনো কোনো থানায় ডাইরী করেছেন যে এদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা? কেউ যদি আমার দেশের আলো বাতাসে বড় হয়ে,আমার দেশে টাকা উপার্জন করে ভারতের মাটি কিনে বসত বাড়ী করে এবং সেখানে স্বেচ্ছায় যায় তাহলে কি তাকে গুম বা মিসিং বলবে? প্রিয়া সাহা কি জানেন না তারা কোথায় গেছে? সরকার কি তাহলে তাদের ভারতে যাওয়ার ভিসা বন্ধ করে দিবেন?

এ পর্যন্ত কোনো সংখ্যা লঘু সম্প্রদায় গুম হয়েছে বলে আমার জানা নেই। বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িকতা পৃথিবীর বুকে বিরল। ভারতের দাঙ্গাকে কেন্দ্র করে যে কয়টি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ঘটেছে আমরা তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছি, সরকারও শক্ত হাতে তা দমন করেছে। আমরা ঈদ এবং পূজার আনন্দকে অসম্প্রদায়িক চিত্তে উপভোগ করেছি। আমরাও পূজায় গিয়েছি,তারাও ঈদের আনন্দ উপভোগ করেছে। অনেক সময় বাসায় মেহমান আসলে প্রতিবেশী হিন্দুঘরে গিয়ে রাত যাপন করেছি। মাসীকে মায়ের মত সন্মান করেছি,মাসীও সন্তানতূল্য ভাবে দেখেছেন। এমন পরিবেশ দেখেই বড় হয়েছি। আমার ব্যক্তিগত অবজারভেশন হচ্ছে যে সকল হিন্দু বাংলাদেশকে ভালোবাসে তারা কেউ এদেশ ছেড়ে যায়নি বা যাবেনা। যারা এদেশকে ভালোবাসেনা বা হিন্দু মৌলবাদী তারা চলে গেছে, আবার একশ্রেনীর হিন্দু আছেন যারা বাংলাদেশে বাড়ী থাকার পরেও ভারতে বাড়ী করে রেখেছেন। এরা অভিজাত শ্রেণীর হিন্দু। ভারতেও তো মুসলমান অত্যাচারিত,নির্যাতিত হয়েছে বার বার,তারাতো কেউ ভারত ছেড়ে বাংলাদেশে আসেনি। তাহলে কেন বাংলাদেশের হিন্দুরা ভারতে গিয়ে বাড়ী করবে আর সরকারকে এজন্য মিসিং এর দায়ভার নিতে হবে?

সরকারীভাবে একটা পরিসংখ্যান হওয়া উচিত কি পরিমাণ হিন্দু পরিবার বাংলাদেশের টাকা দিয়ে ভারতে বসত করেছেন। এই পরিসংখ্যান হলেই প্রিয়া সাহা তার উত্তর পেয়ে যাবেন। পরিশেষে বলবো,ধর্ম যার যার, বাংলাদেশ সবার।এদেশের মুসলমান,হিন্দু,বৌদ্ধ ও খ্রীষ্টান আমরা সকলেই দেশপ্রেম নিয়ে বাংলা মায়ের সন্তানের মত মিলে মিশে থাকতে চাই। যারা দেশ ত্যাগ করে অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে অপবাদের তকমা লাগিয়েছেন তারা প্রিয়া সাহার মত দেশদ্রোহী কাতারের লোক। দুধ কলা দিয়ে সাপ পোষার মত এসকল স্বার্থপর লোকেরাই এদেশকে ছোবল মারবে, গসেটি বেগমের মত বিশ্বাস ঘাতকতা করবে। প্রিয়া সাহার এমন দেশদ্রোহী বক্তব্যে কয়জন হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান প্রতিবাদ করেছেন তার থেকেও একটা ধারনা পাওয়া যায় বাংলাদেশের প্রতি তাদের ভালোবাসা আসলে কতোটা আছে! তাদের নীরব ভূমিকাতেও আমি বিস্মিত হয়েছি।

ড.মনওয়ার সাগর
লেখক ও গবেষক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *