ইমাম-উল-হকের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ

খেলাধুলা

Sharing is caring!

পাকিস্তানের ক্রিকেটার তো বিতর্ক হবেই! সে ধরায় এবার যোগ হলেন ইনজামাম ভাতিজা ইমাম উল হক। পাকিস্তান ক্রিকেট এবং বিতর্ক যে সমার্থক শব্দ তা আরেকবার প্রমাণিত। ওপেনার ইমাম উল হককে ঘিরে ছড়িয়ে পড়েছে কিছু হোয়াটসএ্যাপ স্ক্রিণশট, আর এতে করে নারী কেলেঙ্কারিতে ফেঁসে যেতে পারেন ইমাম।

চাচা ইনজামাম সদ্যই নির্বাচকের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন, কিছুটা স্বস্তি নিশ্চয়ই ইমাম উল হকও পেয়েছেন। লোকে তার জাতীয় দলে জায়গা নিয়ে আর প্রশ্ন তুলতে পারবেনা। কিন্তু নতুন বিতর্কে নিজেই যে কেলেঙ্কারি ঘটিয়ে বসে আছেন! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার হোয়াটস এপ চ্যাট ফাঁস হওয়ার পর বেশ বিপাকেই পড়ার কথা ইমামের।

চ্যাট দেখে স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে ৭/৮ জন নারীর সাথে সম্পর্ক ছিল ২৩ বছর বয়সী এই ওপেনারের যাদের মধ্যে চারজনের সাথে হওয়া চ্যাট ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়েও পড়েছে।

একজন মেয়ের চ্যাট মূলত টুইটারে পোস্ট করে এক ব্যক্তি প্রথম বিষয়টি তুলে ধরেন। তার দাবি ওই মেয়েই তাকে বলেছে ইমামের চ্যাটগুলো ফাঁস করে দিতে যা সে গত ৬ মাস ধরে তার সাথে করে আছে।

সূত্রমতে বিশ্বকাপ চলাকালীনও ইমাম এসবের সাথে জড়িয়ে ছিল। কিছু চ্যাটে দেখা যাচ্ছে পাকিস্তানি এই ওপেনার মেয়েটিকে বেব বলে সম্বোধন করছে, কিছুতে আবার ব্যক্তিগত তথ্য আদান-প্রদান!

ভিন্ন আরেক চ্যাটে দেখা যাচ্ছে ইমাম যারপরানই চেষ্টা করছে মেয়েটির সাথে সম্পর্ক ছিন্নের। পোস্টদাতা বলছে ইমাম মেয়েটির সাথে অনৈতিক কোন সম্পর্কেই জড়িয়েছিল।

ওই পোস্টদাতা আরও জানান তার কাছে ইমামের সাথে মেয়েদের সম্পর্কের অনেকগুলো ভিডিও আছে। মেয়েদের অনুমতি পেলে সে সেসবও ছড়িয়ে দিবে বলে দেন হুশিয়ারি। আর এসব সত্য হলে পাকিস্তানি এই ওপেনার পড়তে যাচ্ছেন অনেক বড় শাস্তির মুখে, এমন ধারণা করাই যায়।

এ প্রসঙ্গে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কিংবা ইমাম উল হকের বক্তব্য অবশ্য এখনও পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *