ডিক্যাপ্রিওর প্রেমিকার বয়স তার বয়সের অর্ধেক

বিনোদন

Sharing is caring!

ছবি দেখে যে কেউ মনে করতে পারে তাদের বয়সটা বাবা মেয়ের অনুপাতে।আসলে তা না ক্যামিলা মরান হচ্ছে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর প্রেমিকা।

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও অভিনীত নতুন হলিউড ছবি ‘ওয়ান্স আপন আ টাইম ইন হলিউড’। ছবির অবস্থা খুব বেশি আশাব্যঞ্জক নয়। আশানুরূপ আয় করতে পারছে না ছবিটি। অন্যদিকে, একই সময়ে মুক্তি পাওয়া ছবি ‘দ্য লায়ন কিং’ বরং বেশি দেখছেন সিনেমাপ্রেমীরা। ছবি মন্দা গেলেও অস্কারজয়ী অভিনেতা লিওনার্দোর প্রেমিকজীবন মন্দাক্রান্ত নয়। হিসাব করে দেখা গেছে, এখন পর্যন্ত পঁচিশোর্ধ্ব কোনো নারীকে প্রেমিকা হিসেবে পাননি এই হলিউড তারকা।

প্রেম যে বাঁধা বা ব্যবধান মানে না, তার প্রমাণ আবারও পাওয়া যায় ডিক্যাপ্রিওর দিকে তাকালে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে নতুন একটি প্রেম শুরু করেছেন তিনি। প্রেমিকা আর্জেন্টাইন মডেল ও অভিনেত্রী ক্যামিলা রেবেকা মরানের বয়স এখন ২২ বছর। দুজনের পরিচয় যখন, ক্যামিলার বয়স তখন মাত্র ১০ বছর। ক্যাপ্রিওর সঙ্গে প্রেম হওয়ার পর কত যে সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে তাঁদের, তার কোনো হিসাব নেই। কিন্তু প্রেমের কাছে কি আর নিন্দুক বা সমালোচকেরা পাত্তা পায়? ক্যামিলার সৎবাবা পরিচালক আল পাচিনোর মাধ্যমে দুজনের পরিচয়। যদিও তখন ক্যামিলার বয়স মাত্র ১০ বছর। পরিচয়ের প্রায় ১০ বছর পর তাঁরা প্রেমে জড়ান।

অন্যদিকে, প্রেমের ব্যাপারে ডিক্যাপ্রিও বরাবরই একটু ব্যতিক্রম। এখন পর্যন্ত দেখা গেছে, ক্যাপ্রিওর প্রেমিকাদের কারও বয়সই পঁচিশের ওপরে নয়। তাঁর সবচেয়ে কম বয়সী প্রেমিকার নাম জিজেল বানচেন। ১৯৯৯ সালে মাত্র ১৮ বছরে বয়সে এই ব্রাজিলিয়ান মডেল ডিক্যাপ্রিওর সঙ্গে প্রেমে জড়ান। তাঁর সঙ্গে প্রেমটি টিকেছিল ২০০৫ সাল পর্যন্ত। আর ২৫ বছর বয়সী যে তিন নারীর সঙ্গে প্রেম করেছিলেন ক্যাপ্রিও, তাঁরা হলেন ইসরায়েলি মডেল বার রেফায়লি, মার্কিন মডেল কেলি রোবার্চ এবং ড্যানিশ মডেল নিনা অ্যাজডাল।

লোকের সমালোচনা সইতে সইতে বিরক্ত ক্যামিলা। একপর্যায়ে টুইটারে অভিনেতা লরেন বেকল ও অভিনেত্রী হামফ্রে বরগাসের একটি সাদাকালো ছবি পোস্ট করেন তিনি। সেটার ক্যাপশনে লেখেন, ‘ভালোবাসা এমনই’। এ জুটির বয়সের ব্যবধানও ছিল ২৫ বছর। ছবিটি পোস্ট করে ক্যামিলা হয়তো বোঝাতে চেয়েছেন, তোমরা যে যা–ই বলো, আমার কিচ্ছু যায়–আসে না। যদিও এই পোস্টের নিচে গাদাখানেক আজেবাজে মন্তব্য করেছেন খোদ ক্যামিলার বন্ধু ও অনুসারীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *