নারায়ণগঞ্জে প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে প্রাণগেলো যুবকের

সারাদেশ

Sharing is caring!

নারায়ণগঞ্জে প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে ফয়সাল নামের এক যুবক খুনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত বুধবার (৩১ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টার দিকে শহরের খানপুর ব্রাঞ্চ রোড়ে আলতাফ মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঘটনার খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে সদর মডেল থানার পুলিশ নগরীর খানপুর ৩’শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদরের জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহতের স্বজনদের দাবি, শহরের বরফকল এলাকায় সামিয়া নামের এক মেয়ের সাথে ফয়সালের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল।বিকেল ৫টার দিকে বাসা থেকে বের হয়ে সে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি।সামিয়ার পরিবার ফয়সালকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।এ ঘটনায় পুলিশ ফয়সালের প্রেমিকার ভাইসহ বরফকল এলাকা থেকে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আটককৃতরা হলেন,নিহত ফয়সালের প্রেমিকার বড় ভাই মো.আসিফ (২০),তার চার বন্ধু সাকিব (১৫),মিলন (১৮),সানজিল (১৭),ও সায়েম (১৮)।

নিহত ফয়সাল সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল চৌধুরী বাড়ি এলাকার নূরুজ্জামানের ছেলে। সে পেশায় এসি মিস্ত্রী ছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নিহতের খালাতো ভাই আসিফ জানায়, শহ রের বরফকল এলাকায় সামিয়া নামে এক মেয়ের সঙ্গে ফয়সালের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। বিকেল ৫টার দিকে বাসা থেকে বের হয়ে তিনি আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরে জানতে পারি রাতে সামিয়া সঙ্গে দেখা করতে গেলে তার স্বজনরা তাকে পিটিয়ে আহত করেন। আহত অবস্থায় তাকে শহরের খানপুর হাসপাতালের নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদিন জানান, ধারণা করা হচ্ছে প্রেমঘটিত বিষয়ে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।মরদেহের মুখমন্ডলে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ফয়সালকে হত্যা করা হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে তদন্ত চলছে এবং আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *