সুবর্ণচরে কিশোরীকে গণধর্ষণ,গ্রেফতার দুই

নোয়াখালী বৃহত্তর চট্টগ্রাম

Sharing is caring!

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে এক কিশোরী গণধর্ষণের শিকারের অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) গণধর্ষণের অভিযোগের ভিত্তিতে দু’জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

এদিন বিকেলে গণধর্ষণের শিকার কিশোরীর বড় বোন বাদী হয়ে চর জব্বার থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় চারজনকে আসামি করা হয়।

অভিযুক্তরা হলেন- উপজেলার চর তোরাব আলী গ্রামের মৃত মোবারক আলীর ছেলে আলী হোসেন ওরফে হোসেন ব্যাপারী, আলী আহমেদের ছেলে মো. সোহেল, মকসুদ চৌকিদারের ছেলে চৌধুরী ও চরলক্ষ্মী গ্রামের নূর করিমের ছেলে দিদার হোসেন বলে জানা গেছে।

চর জব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাহেদ উদ্দিন তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় গণধর্ষণের শিকার কিশোরী বোনের বাড়িতে যাচ্ছিল। মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চর আলাউদ্দিন গ্রামের বরইতলা এলাকায় পৌঁছালে ধর্ষকরা তার পথ আটকায়। এরপর জোর করে একটি মাছের খামারে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে তিনজন তাকে ধর্ষণ করে।

এ সময় কিশোরী জ্ঞান হারিয়ে ফেললে ধর্ষকরা তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১২টার দিকে পরিবারের সদস্যরা তাকে বিবস্ত্র অবস্থায় উদ্ধার করে। শুক্রবার তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বলে নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম জানান, আজ (১৭ আগস্ট) মেয়েটির কয়েকটি শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। বাকি দু’টি পরীক্ষা আগামীকাল (১৮ আগস্ট) করা হবে। এরপর ধর্ষণের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

মো. সাহেদ উদ্দিন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরে শুক্রবার আলী হোসেন ওরফে হোসেন ব্যাপারী ও মো. সোহেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছিল। শনিবার মামলা দায়ের হলে তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *