জাকির নায়েক সীমা অতিক্রম করেছেন: মাহাথির মোহাম্মদ

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

ভারতের বিতর্কিত প্রচারক ও ইসলামি বক্তা জাকির নায়েক মালয়েশিয়ায় রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়ে সীমা অতিক্রম করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েককে রাজনৈতিক বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থাকা উচিত বলেও মন্তব্য করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

রবিবার(১৮ আগস্ট) কুয়ালালামপুর কনভেনশন সেন্টারে ওয়ার্ল্ড স্ট্যাটিসটিকস কংগ্রেস এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মাহাথির মোহাম্মদ।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি জানি না কে তাকে মালয়েশিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাসের মর্যাদা দিয়েছেন। তবে, রাজনীতি থেকে তার দূরে থাকা উচিত।

তিনি প্রচার করতে পারেন, ইসলামের প্রচার করতে পারেন এবং আমরা তাকে থামাতে যাচ্ছি না। কিন্তু, তাকে অবশ্যই রাজনীতি নিয়ে কথা বলা বন্ধ করতে হবে। চীনা এবং ভারতীয়দের নিজ দেশে ফিরে যেতে বলাটা রাজনৈতিক।‘ তিনি বর্ণবাদী মানসিকতাকে উসকে দিচ্ছেন বলেও মন্তব্য করেন মাহাথির মোহাম্মদ।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মালয়েশিয়ার আইনের শাসন আছে এবং আমরা এটা চর্চা করব।‘ জাকির নায়েক বর্ণবাদী অনুভূতিকে উসকে দিচ্ছেন। তার এ ধরনের মন্তব্যে কোনো উত্তেজনা সৃষ্টি হচ্ছে কি না তা পুলিশ অবশ্যই খতিয়ে দেখবে বলেও জানান মাহাথির।

অতীতে জাকির নায়েকের প্রতি বেশ কয়েকবার নিজের সমর্থন জানালেও এবারই প্রথম কঠোর ভাষায় মন্তব্য করলেন মাহাথিত মোহাম্মদ।

গত সপ্তাহে, এক বক্তৃতায় জাকির নায়েক বলেছিলেন, মালয়েশিয়ার হিন্দুরা ভারতের মুসলিমদের চেয়ে বেশি অধিকার ভোগ করছে। এ সময়, তিনি প্রশ্ন তোলেন মালয়েশিয়ার হিন্দুরা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নাকি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের প্রতি বেশি বিশ্বস্ত। নিজের বক্তব্যের এক পর্যায়ে তিনি ভারতীয় এবং চীনাদের নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান।

এরপর গত বুধবার, মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে দুই মন্ত্রী প্রস্তাব দেন, জাকির নায়েকের উসকানিমূলক বক্তব্যের জন্য তাকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো উচিত। তবে, তিনি বলেছিলেন, ‘ভারতে তাকে ফেরত পাঠানো হবে না। কারণ সেখানে তার জীবন ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে। তবে, অন্য কোনো দেশ যদি তাকে নিতে চায় তাহলে তাদের স্বাগত জানানো হবে।‘

এর আগে, ভারতের আদালতে অর্থপাচার এবং ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর মধ্য দিয়ে জিহাদি কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ করার অভিযোগ রয়েছে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে। জাকির নায়েক মালয়েশিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পাওয়ার পর ২০১৮ সালে তাকে ভারতে ফেরত পাঠানোর আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হয় দিল্লির পক্ষ থেকে। তখন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *