চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে এমপি দিদারের ডিপোতে লরিচালককে গুলি করে হত্যা

উত্তর চট্টগ্রাম বৃহত্তর চট্টগ্রাম

Sharing is caring!

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বন্দর টোল সড়কে স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের মালিকানাধীন গাড়ির ডিপোতে গুলি করে এক লরিচালককে হত্যা করার ঘটনা ঘটেছে। এ হত্যাকাণ্ডে এমপি দিদারের মালিকানাধীন দিদার অ্যান্ড ব্রাদার্সের (ড্যাব) ডিপোর ফোরম্যান মাসুমই সরাসরি গুলি করেছেন বলে জানা গেছে।

নিহত লরিচালক শাহজাহান ওরফে সাজু (৪৮) একই কোম্পানিতে লরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি নোয়াখালী জেলার সেনবাগ উপজেলার বাসিন্দা।

বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুর তিনটার দিকে টোল রোডের কালু শাহর মাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরে তাকে উদ্ধার করে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান এ লরিচালক।

সীতাকুণ্ড থানার ওসির দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম শেখ বলেন, ‘সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাট টোল রোড়ে একটি রেস্টুরেন্টের সামনে গুলিতে এক লরিচালক খুন হয়েছে। তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তাকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।পরে তাকে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তবে হাসপাতালে যারা গুলিবিদ্ধ লরিচালককে এনেছেন, তারা স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জকে জানিয়েছেন সীতাকুণ্ডের টোল রোডের এমপি দিদারুল আলমের মালিকানাধীন লরির ডিপো থেকেই তাকে ধরে আনা হয়।

হত্যার মোটিভ ও জড়িত কাউকে আটক করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম শেখ বলেন, ‘এ ঘটনা কেন এবং কীভাবে ঘটেছে আমরা তদন্ত করছি। এছাড়া এখনো পর্যন্ত কাউকেই আটক করা যায়নি।’

এদিকে সংসদ সদস্য দিদারুল আলম নিজ ডিপোতে লরি চালকদের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে স্বীকার করেছেন। তিনি এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত নায়েক শীলব্রত বড়ুয়া বলেন,‘সীতাকুণ্ডের টোল রোডে একটি লরির ডিপোতে গুলিবিদ্ধ সাজু নামে এক চালককে বিকেল ৪টার দিকে তার মামা মুজিবর রহমান ও মাসুম নামে দুজন একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে আনেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কিন্তু লরিচালক মারা যাওয়ার পরপরই মাসুম নামে ওই লোক হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সীতাকুণ্ডের সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের মালিকানাধীন দিদার অ্যান্ড ব্র্যাদার্সের (ড্যাব) ডিপোতে বুধবার দুপুর ২টার দিকে এমপি দিদারের ব্যবসায়িক পার্টনার রাশেদের গাড়িতে করে সাজুকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দুপুর আড়াইটার দিকে কোম্পানির ফোরম্যান মাসুম লরি চালক সাজুকে পেটে গুলি করে। মারা গেছে ভেবে প্রথমে টোল রোডের পশ্চিমে সাগর পাড়ে ফেলে দিলেও পরে সেখান থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে মাসুম ও সাজুর মামা মজিবুর রহমান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *