কে হবেন ‘মাসুদ রানা’ প্রতিযোগিতার বিচারকদের দুর্ব্যবহার নিয়ে সমালোচনার ঝড়

বিনোদন

Sharing is caring!

জনপ্রিয় গোয়েন্দা থ্রিলার সিরিজ ‘মাসুদ রানা’র প্রথম পর্ব ‘ধ্বংস পাহাড়’ নিয়ে নির্মিত হচ্ছে বিগ বাজেটের চলচ্চিত্র ‘মাসুদ রানা’। এদিকে এই সিনেমাকে ঘিরে গত ২ আগস্ট থেকে চ্যানেল আই’তে শুরু হয়েছে রিয়্যালিটি শো ‘কে হবেন মাসুদ রানা’।

যদিও চ্যানেল আইতে শুরু হওয়া ওই রিয়্যালিটি শো’র আয়োজকদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার বিরোধ তৈরি হয়েছে। ঠিক কী কারণে এই বিরোধ তা জানা না গেলেও রিয়্যালিটি শো’ থেকে বেরিয়ে আসা প্রতিযোগীকে মাসুদ রানা সিনেমায় নেওয়া হচ্ছে না- এটা চূড়ান্ত।

জাজের সঙ্গে বনিবনা না হওয়া সত্ত্বেও চ্যানেল আইতে প্রচার হচ্ছে ওই প্রতিযোগিতা। আর প্রচার চলতি ওই প্রতিযোগিতা নিয়েই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। মূলত প্রতিযোগিতায় বিচারকদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দর্শকেরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘কে হবেন মাসুদ রানা?’ প্রতিযোগিতার বেশ কিছু পর্বে বিচারকদের আচরণের ভিডিও প্রকাশ করে নিন্দা করছেন নেটিজেনরা। বেশ কয়েক দিন ধরেই এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড়।

দর্শকদের অভিযোগ, বিচারকেরা প্রতিযোগীদের প্রতিনিয়ত অপমান করছেন। ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, একজন প্রতিযোগীর চুলের কাটিং নিয়ে ঠাট্টা করছেন বিচারকের আসনে বসা পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। এ ছাড়া অভিনেত্রী মমকেও প্রতিযোগীদের সঙ্গে রূঢ় আচরণ করতে দেখা যায়।

ফেসবুকে রাজু নুরুল নামের এক দর্শক ভিডিও’র স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন, ‘ভিডিওটা দেখে তাজ্জব হয়ে গিয়েছিলাম। একটা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে আসা প্রতিযোগীকে এভাবেও অপমান করা যায়? তিনজন বিচারকই সমান তালে অপমান করে গেছেন।’

প্রতিযোগীদের অপমান করার বিষয়টি নজরে এসেছে ‘মাসুদ রানা’ ছবির প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও আলিমুল্লাহ খোকনেরও।

ফেসবুকে খোকন বলেন, ‘মাসুদ রানা কে হবে সেটা একমাত্র জাজের সহযোগিতায় চূড়ান্ত হবে, প্রতারকের চক্র থেকে সবাই সাবধান। আমাদের বাচ্চাদেরকে সমগ্র পৃথিবীর কাছে হাস্যকর বানাবেন না। আমার বাচ্চা কালো হোক, অভিনয় না জানুক, তার শখ সে মাসুদ রানা হবে, আপনি কে তাকে অপমান করার? এই দুঃসাহস আগামীতে দেখাবেন না, আমিও ছেলের বাবা।’

উল্লেখ্য, কাজী আনোয়ার হোসেনের গোয়েন্দা চরিত্র ‘মাসুদ রানা’ নিয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি প্রযোজনা করছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। প্রযোজনায় আরও থাকছে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিলভারলাইন এন্টারটেইনমেন্ট। পরিচালনা করছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আমেরিকান নির্মাতা আসিফ আকবর।জনপ্রিয় গোয়েন্দা থ্রিলার সিরিজ ‘মাসুদ রানা’র প্রথম পর্ব ‘ধ্বংস পাহাড়’ নিয়ে নির্মিত হচ্ছে বিগ বাজেটের চলচ্চিত্র ‘মাসুদ রানা’। এদিকে এই সিনেমাকে ঘিরে গত ২ আগস্ট থেকে চ্যানেল আই’তে শুরু হয়েছে রিয়্যালিটি শো ‘কে হবেন মাসুদ রানা’।

যদিও চ্যানেল আইতে শুরু হওয়া ওই রিয়্যালিটি শো’র আয়োজকদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার বিরোধ তৈরি হয়েছে। ঠিক কী কারণে এই বিরোধ তা জানা না গেলেও রিয়্যালিটি শো’ থেকে বেরিয়ে আসা প্রতিযোগীকে মাসুদ রানা সিনেমায় নেওয়া হচ্ছে না- এটা চূড়ান্ত।

জাজের সঙ্গে বনিবনা না হওয়া সত্ত্বেও চ্যানেল আইতে প্রচার হচ্ছে ওই প্রতিযোগিতা। আর প্রচার চলতি ওই প্রতিযোগিতা নিয়েই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। মূলত প্রতিযোগিতায় বিচারকদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দর্শকেরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘কে হবেন মাসুদ রানা?’ প্রতিযোগিতার বেশ কিছু পর্বে বিচারকদের আচরণের ভিডিও প্রকাশ করে নিন্দা করছেন নেটিজেনরা। বেশ কয়েক দিন ধরেই এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড়।

দর্শকদের অভিযোগ, বিচারকেরা প্রতিযোগীদের প্রতিনিয়ত অপমান করছেন। ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, একজন প্রতিযোগীর চুলের কাটিং নিয়ে ঠাট্টা করছেন বিচারকের আসনে বসা পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। এ ছাড়া অভিনেত্রী মমকেও প্রতিযোগীদের সঙ্গে রূঢ় আচরণ করতে দেখা যায়।

ফেসবুকে রাজু নুরুল নামের এক দর্শক ভিডিও’র স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন, ‘ভিডিওটা দেখে তাজ্জব হয়ে গিয়েছিলাম। একটা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে আসা প্রতিযোগীকে এভাবেও অপমান করা যায়? তিনজন বিচারকই সমান তালে অপমান করে গেছেন।’

প্রতিযোগীদের অপমান করার বিষয়টি নজরে এসেছে ‘মাসুদ রানা’ ছবির প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও আলিমুল্লাহ খোকনেরও।

ফেসবুকে খোকন বলেন, ‘মাসুদ রানা কে হবে সেটা একমাত্র জাজের সহযোগিতায় চূড়ান্ত হবে, প্রতারকের চক্র থেকে সবাই সাবধান। আমাদের বাচ্চাদেরকে সমগ্র পৃথিবীর কাছে হাস্যকর বানাবেন না। আমার বাচ্চা কালো হোক, অভিনয় না জানুক, তার শখ সে মাসুদ রানা হবে, আপনি কে তাকে অপমান করার? এই দুঃসাহস আগামীতে দেখাবেন না, আমিও ছেলের বাবা।’

উল্লেখ্য, কাজী আনোয়ার হোসেনের গোয়েন্দা চরিত্র ‘মাসুদ রানা’ নিয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি প্রযোজনা করছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। প্রযোজনায় আরও থাকছে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিলভারলাইন এন্টারটেইনমেন্ট। পরিচালনা করছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আমেরিকান নির্মাতা আসিফ আকবর।জনপ্রিয় গোয়েন্দা থ্রিলার সিরিজ ‘মাসুদ রানা’র প্রথম পর্ব ‘ধ্বংস পাহাড়’ নিয়ে নির্মিত হচ্ছে বিগ বাজেটের চলচ্চিত্র ‘মাসুদ রানা’। এদিকে এই সিনেমাকে ঘিরে গত ২ আগস্ট থেকে চ্যানেল আই’তে শুরু হয়েছে রিয়্যালিটি শো ‘কে হবেন মাসুদ রানা’।

যদিও চ্যানেল আইতে শুরু হওয়া ওই রিয়্যালিটি শো’র আয়োজকদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার বিরোধ তৈরি হয়েছে। ঠিক কী কারণে এই বিরোধ তা জানা না গেলেও রিয়্যালিটি শো’ থেকে বেরিয়ে আসা প্রতিযোগীকে মাসুদ রানা সিনেমায় নেওয়া হচ্ছে না- এটা চূড়ান্ত।

জাজের সঙ্গে বনিবনা না হওয়া সত্ত্বেও চ্যানেল আইতে প্রচার হচ্ছে ওই প্রতিযোগিতা। আর প্রচার চলতি ওই প্রতিযোগিতা নিয়েই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। মূলত প্রতিযোগিতায় বিচারকদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দর্শকেরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘কে হবেন মাসুদ রানা?’ প্রতিযোগিতার বেশ কিছু পর্বে বিচারকদের আচরণের ভিডিও প্রকাশ করে নিন্দা করছেন নেটিজেনরা। বেশ কয়েক দিন ধরেই এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড়।

দর্শকদের অভিযোগ, বিচারকেরা প্রতিযোগীদের প্রতিনিয়ত অপমান করছেন। ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, একজন প্রতিযোগীর চুলের কাটিং নিয়ে ঠাট্টা করছেন বিচারকের আসনে বসা পরিচালক ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। এ ছাড়া অভিনেত্রী মমকেও প্রতিযোগীদের সঙ্গে রূঢ় আচরণ করতে দেখা যায়।

ফেসবুকে রাজু নুরুল নামের এক দর্শক ভিডিও’র স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন, ‘ভিডিওটা দেখে তাজ্জব হয়ে গিয়েছিলাম। একটা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে আসা প্রতিযোগীকে এভাবেও অপমান করা যায়? তিনজন বিচারকই সমান তালে অপমান করে গেছেন।’

প্রতিযোগীদের অপমান করার বিষয়টি নজরে এসেছে ‘মাসুদ রানা’ ছবির প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও আলিমুল্লাহ খোকনেরও।

ফেসবুকে খোকন বলেন, ‘মাসুদ রানা কে হবে সেটা একমাত্র জাজের সহযোগিতায় চূড়ান্ত হবে, প্রতারকের চক্র থেকে সবাই সাবধান। আমাদের বাচ্চাদেরকে সমগ্র পৃথিবীর কাছে হাস্যকর বানাবেন না। আমার বাচ্চা কালো হোক, অভিনয় না জানুক, তার শখ সে মাসুদ রানা হবে, আপনি কে তাকে অপমান করার? এই দুঃসাহস আগামীতে দেখাবেন না, আমিও ছেলের বাবা।’

উল্লেখ্য, কাজী আনোয়ার হোসেনের গোয়েন্দা চরিত্র ‘মাসুদ রানা’ নিয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি প্রযোজনা করছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। প্রযোজনায় আরও থাকছে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিলভারলাইন এন্টারটেইনমেন্ট। পরিচালনা করছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আমেরিকান নির্মাতা আসিফ আকবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *