মারা গেলো রাঙ্গুনিয়ার শীর্ষ সন্ত্রাসী ওসমান, সরফভাটায় মিষ্টি বিতরণ

উত্তর চট্টগ্রাম প্রচ্ছদ বৃহত্তর চট্টগ্রাম

Sharing is caring!

ইমরান হোসেন:-চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সরফভাটা এলাকার সময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী ওসমান (৩০) গুলিবিদ্ধ হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

১সেপ্টেম্বর (রবিবার) রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সন্ত্রাসী ওসমান।
সন্ত্রাসী ওসমান পশ্চিম সরফভাটা এলাকার গঞ্জম আলী সরকারের বাড়ির আবুল কালামের পুত্র।

এদিকে সন্ত্রাসী ওসমানের মৃত্যুর খবর শুনতে পেয়ে সরফভাটা এলাকায় জনমনে ফিরে এসেছে স্বস্তি।
স্থানীয়রা আনন্দ মিছিল করেছেন সরফভাটার ক্ষেত্রবাজার এলাকায়।
উৎসবে উল্লাসে মিষ্টি বিতরণও করেছেন সরফভাটার স্থানীয়রা।

রাঙ্গুনিয়া পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, “প্রতিপক্ষের ছোঁড়া ৬টি গুলিবিদ্ধ হয়েছিল সন্ত্রাসী ওসমানের শরীরে। সন্ধ্যায় তার শরীরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ শুরু হলে তাকে অপারেশন রুমে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

সরফভাটা ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সন্ত্রাসী ওসমান গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়ার খবরে সারা-সরফভাটায় সর্ব সাধারণের মনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।
সাধারণ মানুষ উৎসবে-উল্লাসে এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করেন।

এদিকে সরফভাটা ক্ষেত্রবাজারেও একটি আনন্দ মিছিল বের করে আনন্দ সমাবেশ করা হয় এবং মিষ্টি বিতরণ করা হয়।
মিষ্টি বিতরণ করে এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আবদুর রউফ মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক শামসুল ইসলাম, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুচ, সরফভাটা যুবলীগ নেতা খোরশেদ আলম সুজন প্রমুখ।

আনন্দ সমাবেশ থেকে সন্ত্রাসী ওসমানের কথিত ওসমান বাহিনীর অপর সব সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি করেন।
এছাড়াও কিছুদিন আগে একই সন্ত্রাসী বাহিনীর গ্রেপ্তারকৃত সন্ত্রাসী তোফায়েলের ফাঁসির দাবি করেন সকল নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্যঃ হত্যা, ডাকাতি, মারামারি, চাঁদাবাজি ও অস্ত্র মামলা সহ একাধিক মামলায় পুলিশের তালিকাভুক্ত আসামী শীর্ষ সন্ত্রাসী ওসমান গত ৩১ আগস্ট (শনিবার) ভোরে প্রতিপক্ষের গুলিতে গুলিবিদ্ধ হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়।
সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সন্ত্রাসী ওসমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *