প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র মূল্যায়নে আলাদা বিধি প্রণয়ের নির্দেশ

ফিচার শিক্ষা

Sharing is caring!

পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়া প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র মূল্যায়নে তিন মাসের মধ্যে বিধি প্রণয়নের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রায়ে শিক্ষা সচিব, সমাজকল্যাণ সচিব, দেশের সব শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে এ নির্দেশনা প্রতিপালন করতে বলা হয়েছে।

আজ সোমবার(৯ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ রায় দেন।

এর আগে ২০১৭ সালে আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র মূল্যায়নে আলাদা বিধি প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন।

২০১৬ সালে মোহাম্মদপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমানের প্রতিবন্ধী ছেলে মোস্তফা মাসুদ জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় অংশ নেয়। পরীক্ষার ফলে মোস্তফা মাসুদকে দুই বিষয়ে অকৃতকার্য দেখানো হয়। পরে খাতা পুনরায় মূল্যায়ন করতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কাছে আবেদন করা হলেও কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে রিট করেন তিনি।

ওই রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে ২০১৭ সালে রুল জারি করেন হাইকোর্ট বেঞ্চ। রুল জারির পর বোর্ড কর্তৃপক্ষ মোস্তফা মাসুদকে জেএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য দেখান। চলতি বছর মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় আবার দুই বিষয়ে অকৃতকার্য হয় মোস্তফা মাসুদ। আবারো উত্তরপত্র পুনরায় মূল্যায়ন চেয়ে হাইকোর্টে সম্পূরক আবেদন করেন তার বাবা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *