বন্ড মার্কেট ও শেয়ারবাজার উন্নয়নে কাজ করবে বিশ্বব্যাংক

অর্থনীতি

Sharing is caring!

শেয়ারবাজার ও বন্ড মার্কেট উন্নয়নে বিশ্বব্যাংক সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এছাড়াও, সংস্থাটি অর্থনীতির পিছিয়ে থাকা জায়গার উন্নয়নেও এগিয়ে আসবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর শেরেবাংলানগরে বিশ্বব্যাংকের আঞ্চলিক পরিচালক জুবিদা খেরুজ অ্যালাউয়ার সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা অর্থনৈতিকভাবে যেখানে আছি, সেখান থেকে আরও উন্নতি করতে অনেক শক্তি ব্যয় করতে হবে। এ জন্য আমাদের ক্যাপাসিটি আরও বাড়াতে হবে। বিশ্বব্যাংক এক্ষেত্রে আরও বেশি বেশি সাহায্য করতে প্রস্তুত রয়েছে।’

বন্ড মার্কেট নিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বন্ড মার্কেটটার টোটালি উন্নয়ন করা হয়নি। এ মার্কেটটার উন্নয়ন করতে হবে। এ মার্কেটে সরকারি-বেসরকারি উভয় সেক্টরই আসবে। বন্ড মার্কেটের উন্নয়ন হলে শেয়ারবাজারেরও উন্নয়ন হবে। বন্ড মার্কেটের উন্নয়নে বিভিন্ন ফি কমানো হয়েছে। বন্ড মার্কেটকে গতিশীল করার জন্য যা যা করা দরকার তাই করা হবে। কেননা বন্ড মার্কেটের উন্নয়নে শেয়ারবাজারের উন্নয়ন হবে। এছাড়াও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা বন্ড মার্কেটে চলে আসবে।’

শেয়ার বাজারের উন্নয়নে কিভাবে বিশ্বব্যাংক কাজ করবে এবং কখন থেকে এটা বাস্তবায়ন হবে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বব্যাংকের কাজ বাংলাদেশে চলমান রয়েছে। তাদের ৪৫টি প্রজেক্ট বর্তমানে কাজ করছে।’

শেয়ার বাজারের উন্নয়নে কিভাবে কাজ করবে এ বিষয়ে সভায় উপস্থিত থাকা বিশ্বব্যাংকের একজন কর্মকর্তা জানান, কিছু টেকনিক্যাল অ্যাসিট্যান্স, রেগুলেটরি রিফর্ম এবং পলিসি’র উন্নয়নে সহায়তা করা হবে। তিনি বলেন, ‘শেয়ারের উন্নয়নের পুরো কাজটাই সমন্বিতভাবে করা হবে। সরকার, বিশ্বব্যাংক এবং যারা এ বিষয়ে আগ্রহী সবাই মিলে এ কাজগুলো করবো।’

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বন্ড মার্কেটের উন্নয়নে করপোরেট সেক্টরের প্রভিডেন্ড ফান্ডগুলোও নিয়ে আসা হবে। এসব বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীও একমত জানিয়েছেন। বর্তমানে আমাদের অর্থনীতিতে আর্থিক খাতের উপাদান কম। উপাদান কম থাকলে অর্থনীতি ছোট হয়ে যায়। অর্থনীতিকে বেগবান করতে হলে আমাদের অনেক টুলস (উপাদান) দরকার। এগুলোই করা হচ্ছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার সবসময় পুঁজিবাজারের সঙ্গে রয়েছে। পুঁজিবাজারের উন্নয়নে সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে। আমার কাজ হচ্ছে তাদের সাপোর্ট দেওয়া, সেটা আমরা দিয়েছি।’ আগামীতে ভালো ভালো সরকারি কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *