দেশকে এগিয়ে নিতে নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা দূর করতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

জাতীয়

Sharing is caring!

দেশকে এগিয়ে নিতে নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা দূর করতে হবেঃ তথ্যমন্ত্রী

ইমরান হোসেন, রাঙ্গুনিয়া।

দেশকে এগিয়ে নিতে হলে নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা দূর করতে হবে। শিশুর প্রতি নির্মমতা বন্ধ করতে হবে এবং তাদের মেধা, দেশাত্ববোধ ও মূল্যবোধ জাগ্রত করতে হবে।
বঙ্গবন্ধু যেই স্বপ্নের বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন সেটি আজকে শেখ হাসিনার হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে।

২০ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) উপজেলা সদরের শিশু মেলা মডেল স্কুল মাঠে রাত আটটায় বাংলাদেশ টেলিভিশন ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলা প্রশাসনের যৌথ আয়োজনে শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক বহিরাঙ্গন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারের তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ একথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা একটা স্বপ্নের বাংলাদেশের কল্পনা করি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই স্বপ্নের বাংলাদেশের রূপকল্প আমাদের সামনে উপস্থাপন করেছেন।
মানুষের মধ্যে যদি মূল্যবোধ, দেশাত্ববোধ ও মেধার সমন্বয় ঘটে তাহলে সে উন্নত হয়ে উঠে।
এই সমন্বয় ঘটানোর উত্তম সময় হচ্ছে শিশু ও তরুণ বয়স। সেই কাজটিই আমাদের করতে হবে।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আজহারুল হক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন উর রশিদ, বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জিএম নিতাই কুমার ভট্টাচার্য্য, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, পৌরসভার মেয়র শাহজাহান সিকদার।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের অর্ধেক জনসংখ্যা হচ্ছে নারী। নারী উন্নয়নে বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যান্য দেশ গুলোর কাছে অতিক্রান্ত। আওয়ামীলীগ সরকারের সময়ে বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন পৃথিবীর কম উন্নয়নশীল দেশে হয়েছে। সমস্ত স্থানীয় সরকার পর্ষদে নারীর জন্য ৩০ শতাংশ আসন সংরক্ষিত রাখা হয়েছে।
১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার আগে এভাবে কেউ ভাবেনি যে, স্থানীয় পর্যায়ে এভাবে নারীর ক্ষমতায়ন হবে। এখন নারীরা যে বিমান চালাচ্ছেন, হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি, নারী ডিসি, এসপি, মেজর জেনারেল হবে কেউ চিন্তা করেনি। এসব সম্ভব হয়েছে কেবল জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টি-সম্পন্ন নেতৃত্বের কারণে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *