সবাই আওয়ামী লীগের, কোন দল করতো দেখার বিষয় নয়: কাদের

জাতীয়

Sharing is caring!

অবৈধ ‘ক্যাসিনো বাণিজ্য’সহ চলমান মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী শুদ্ধি অভিযানে গ্রেফতারকৃতরা সবাই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, ‘সরকার আঁটঘাট বেঁধে নেমেছে। কোনও ছাড় নয়, অভিযান চলছে ও চলবে। দলীয় পরিচয়ে কেউ পার পাবেন না। গ্রেফতারকৃতরা এখন আওয়ামী লীগের কর্মী, এটাই বড় কথা; আগে কোন দল করতো, তা দেখার বিষয় নয়।’

কাদের বলেন, ‘যতদিন পর্যন্ত দেশ থেকে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন নির্মূল না হবে ততদিন এই ‘শুদ্ধি অভিযান’ চলবে। প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকলেও চলমান অভিযানে আপস না করার নির্দেশ দিয়ে গেছেন।’

সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

চলমান এই শুদ্ধি অভিযানে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল হয়েছে দাবি করে দলটির সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, ‘অভিযানের ফলে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি বেড়েছে। জনগণ এটা ইতিবাচকভাবে নিয়েছে। এতে দলের কোনও ধরনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়নি।’

গ্রেফতারকৃত জি কে শামীম সরকারের বড় বড় প্রকল্পের ঠিকাদার ছিলেন। সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ ভবন নির্মাণের কাজও তিনি করছেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা যদি আগে আপনারা (সাংবাদিক) বের করতে পারতেন ভালো হতো না? এটা সরকারই করেছে, সরকারকে দেখিয়ে দেবে সাংবাদিকরা। আমি পত্রিকা পড়ে, মিডিয়ায় রিপোর্ট দেখে কোথায় রাস্তা খারাপ, কোথায় ব্রিজ বেহাল- এ বিষয়গুলোর খবর পাই। সাংবাদিকরাই তো আমাদের দেখান। কাজেই এ বিষয়টা আপনাদের অগোচরেই রয়ে গিয়েছিল।’

শামীম কাজ পেতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এমনকি রাজনৈতিক বড় বড় নেতাদের বিপুল অংকের টাকা ‘ঘুষ’ দিয়েছেন বলে যে অভিযোগ তার কোনও তদন্ত হবে কিনা- এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনারা একটু বের করুন, কাদের কাদের ঘুষ দিয়েছে। কেউ বসে নেই। একটু পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসছেন। তার সঙ্গেও আমার কথা হবে, কেউ বসে নেই। সরকারের পক্ষ থেকে আটঘাট বেঁধেই নেমেছি, এখানে কোনও প্রকার আপস নেই।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, বেটার লেট দেন নেভার। আমরা তো কাজটা করছি, সরকারের এক বছরও এখনও যায়নি। নট দ্যাট আমরা ইলেকশনকে সামনে রেখে এই ব্যবস্থাগুলো নিচ্ছি ভোটের জন্য। আমি বলছি, আমরা মিন করছি, যা করছি।’

জেলা পর্যায়েও কি এ ধরনের অভিযান চলবে- জানতে চাইলে কাদের বলেন, ‘অলরেডি চলছে।’

এসময় বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি যা করতে পারেনি শেখ হাসিনা সরকার তা করে দেখাচ্ছে। বিএনপির সৎ সাহস নেই বলে হাওয়া ভবন, খোয়াব ভবন নামে যে দুর্নীতি হয়েছে, তাদের ধরতে পারেনি। আওয়ামী লীগ সরকারের জনপ্রিয়তা বাড়ায় তাদের এখন গাত্রদাহ হচ্ছে।’

কাদের বলেন, ‘এসব কাজের পেছনে যত বড় গডফাদার থাকুক, সবাইকে ধরা হবে। যারা এসব অপকর্মের ইন্ধন জুগিয়েছে, তারা সবাই বিচারের আওতায় আসবে। এর মধ্যে অনেক অপরাধী গা ঢাকা দিয়েছে, তাদের খুঁজছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, তারা পালিয়ে বাঁচতে পারবে না।’

মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘একবারই তো বলেছি, গা ঢাকা দিয়ে আর কেউ রেহাই পাবে না। আইনের আওতায় আসতেই হবে। কোনও আপস নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *