জামালপুরের ডিসি সাময়িক বরখাস্ত: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

জাতীয়

Sharing is caring!

একজন নারী সহকারীর সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের ঘটনায় জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিভাগীয় তদন্তে সত্যতা পাওয়ায়, গত বুধবার (২৪ সেপ্টেম্বর) তাকে বরখাস্ত করা হয়। একইসঙ্গে তার নামে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে মামলার শুনানি শেষে বিভাগীয় প্রতিবেদন সাপেক্ষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এসব তথ্য জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

তিনি বলেন, ‘তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি। এখন শুনানি হবে, সে যদি আবারো দোষী সাব্যস্ত হয় তবে চূড়ান্তভাবে চাকরিচ্যুত করা হবে।’

‘যখন তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আসে। তখন সাময়িক বরখাস্তের পদক্ষেপ নেওয়া হলেও তা বাতিল করা হয়, তাকে তার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে নিয়ে আসা হয়। এর কিছুদিন বাদে তাকে সাময়িক ছুটিতে পাঠানো হয়। পরে তদন্ত কমিটি প্রাথমিক সত্যতা পায় দোষের। তারই পরিপ্রেক্ষিতে বিভাগীয় মামলা হয় বুধবার (২৪ সেপ্টেম্বর)।’ বলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্তী বলেন, বিষয়টি খুব দ্রুতই আমরা শেষ করতে চাই। যেহেতু প্রাথমিক তদন্তে তার দোষ প্রমাণিত হয়েছে, তা উড়িয়ে দেওয়া যায়না। আমরা সেটা আমলে নিয়েই বিভাগীয় মামলা করেছি, এখন আরেকদফা তদন্ত হবে তারপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে গত ২৫ আগস্ট ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করা হয়।

গত আগস্ট মাসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওতে জামালপুরের ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে এক নারীকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায়। ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানা যায়। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতেই তাকে ওএসডি করা হবে বলে জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *