দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়

Sharing is caring!

দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আমরা সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি এবং মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছি। যদি কেউ অসৎ পথে অর্থ উপার্জন করে— অনিয়ম, উচ্ছৃঙ্খলতা বা অসৎ উপায় ধরা পড়লে তার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সে যেই হোক না কেন, আমার দলের হলেও তাকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

স্থানীয় সময় শনিবার বিকেলে ম্যারিয়ট মারকুইজ হোটেলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সমাজে অসৎ পথে অর্থ উপার্জনের হার বেড়ে গেলে যেসব ব্যক্তি বা তাদের সন্তানেরা সৎ পথে জীবন নির্বাহ করতে চায়, তাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়ে। বাংলাদেশ আরও বেশি উন্নত হতে পারতো, যদি প্রকল্পের প্রত্যেকটি টাকা যথাযথভাবে ব্যয় করা হতো। এখন আমাদের খুঁজে বের করতে হবে কোথায় ফাঁক-ফোকর রয়েছে, কারা এই কাজগুলো করছে এবং কিভাবে। কার আয়-উপার্জন কত, কীভাবে জীবন-যাপন করে, সেগুলো আমাদের বের করতে হবে।

যখন দেশের উন্নয়ন হয়, তখন কিছু মানুষ অস্বস্তি বোধ করে। তারা তখন প্রতিহিংসায় সব সময় বিদেশিদের কাছে সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করে। গত নির্বাচনে বিএনপি আন্তরিক ছিল না। বরং তারা মনোনয়ন বাণিজ্যে ব্যস্ত ছিল। দেশের মানুষ আমার দলের ওপর আস্থা রেখেছে এ কারণে যে তারা জানে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন ও তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে— বলেন শেখ হাসিনা।

তিনি আরও বলেন, দলের চেয়ারম্যান একজন অপরাধী, সেই দলকে মানুষ কেন ভোট দেবে। খালেদা জিয়ার এক ছেলে অর্থপাচারের দায়ে দণ্ডিত এবং অন্য ছেলে সিঙ্গাপুরে ক্যাসিনোতে খেলতে গিয়ে গ্রেফতার হয়। প্রবাসীরা যেন দেশে বিনিয়োগে আকৃষ্ট হয় সে ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন স্বাগত বক্তব্য রাখেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। শুরুতেই ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, ১৫ আগস্টের হত্যাযজ্ঞে বঙ্গবন্ধু ও অন্যান্য শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *