এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে এ দেশের মাটিও থাকবে না: মির্জা আব্বাস

রাজনীতি

Sharing is caring!

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থাকলে এ দেশের মাটিও থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয়তাবাদী কৃষকদল এ মানববন্ধন আয়োজন করে।

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে এ দেশের মাটিও থাকবে না। আমি সাংবাদিকদের সাক্ষী রেখে বলতে চাই, এ দেশে একদিন আমরা স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারব না, এখনো পারি না বলতে, তারপরও বলছি, এরপর আর বলতে পারব না। আমাদের অবস্থা বিশ্বের অনেক মুসলমানদের চাইতেও খারাপ হয়ে যেতে পারে— এমন সম্ভবনা আমি লক্ষ্য করছি।’

‘এই জন্যই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত হলে দেশের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং চারিত্রিক যে অবক্ষয় ঘটেছে তার পরিবর্তন ঘটবে বাংলাদেশে’— বলেন মির্জা আব্বাস।

দেশের মানুষ খালেদা জিয়ার অপেক্ষায় বসে আছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘নেত্রী অসুস্থ। মানবিক কারণে তিনি মুক্তি পেতে পারেন, চিকিৎসা পেতে পারেন। উনাকে চিকিৎসার জন্য তেমন সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না— যদিও বলা হচ্ছে তিনি চিকিৎসা পাচ্ছেন। জেলখানার ভেতরে এটা চিকিৎসা নয়। তিলে তিলে তাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছেন। অন্যদিকে এই দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন।’

টিআইবির বরাত দিয়ে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘তারেক রহমানকে অপরাধী প্রমাণ করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের ৪৫ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে। এতে আমার দুঃখ নাই। আমার দুঃখ হলো, এই টাকা পাইলেন কোথায়? কোন অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা বের হয়েছে? তার মানে আপনারা পুরো বিএনপিকে গ্রাস করার চেষ্টা করছেন।’

পেয়াজ ইস্যুতে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘পেঁয়াজ নাই— এই কথা বলেন কেন? ইলিশ মাছ দিয়েছেন, তারা (ভারত) পেঁয়াজ ছাড়া খেতে পারবে নাকি? যদি পেঁয়াজ আপনাদের দিয়েই দেয়, তাহলে ইলিশ মাছ খাবে কেমনে? এটা আমরা খুব একটা ধরি না। তবে বাংলাদেশে পেঁয়াজের কেজি এখন ১২০/১৩০ টাকা।’

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমাদের এক সচিব বললেন- ‘উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই’। পেঁয়াজ কত টাকা হলে আপনি উদ্বিগ্ন হবেন; সেই কথাটা একটু প্রকাশ করবেন? সচিবালয়ের পাশে পেঁয়াজ বিক্রি হয় লাইন ধরে। সেই লাইনে পেঁয়াজ ৪৫ টাকা কেজি। মার্কেটে কেন ১২৫ টাকা কেজি? এইটা একটু জানা দরকার। এটা দুর্নীতি না? এটাও এক ধরনের দুর্নীতি।’

এই দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না’— প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের সূত্র ধরে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘এই সরকারের লজ্জা নেই। এই সরকার রাতের অন্ধকারে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। ত্রিশ তারিখের ভোট উনত্রিশ তারিখ রাতে হয়ে গেছে।’

‘টাকার হিসাব নেওয়ার জন্য নাকি বিএনপিকেও ধরা হবে’— প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘গত ১২ বছর ধরে আমরা হিসাব দিচ্ছি। আদালত আর দুদকে প্যারেড করতে করতে জান শেষ। আমরা হিসাব দিতেই আছি। আপনাদেরটা তো দেন না। মাত্র দুইজন টোকাই ধরেছেন। এই টোকাইয়ের পকেট থেকে যদি এত টাকা বের হয়, তাহলে আপনাদের বাঘা বাঘাদের পকেট থেকে কত বের হবে?’

হাসান জাফির তুহিনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মেহেদী হাসান রুমি, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, কৃষকদল নেতা শাহজাহান মিয়া সম্রাটসহ অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *