গণভবনে যুবলীগের মিটিংয়ে যাদের ডাকা হয়েছে তারাই যাবেন: কাদের

জাতীয়

Sharing is caring!

গণভবনে যুবলীগের বৈঠকে কাকে ডাকবেন বা ডাকবেন না তা প্রধানমন্ত্রীর বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যুবলীগ নিয়ে গণভবনে বৈঠক ডেকেছেন। সেখানে যাদের বলা হয়েছে, তারাই শুধু মিটিংয়ে যাবেন। বৈঠকে যুবলীগের চেয়ারম্যানকে কেনো ডাকা হয়নি, কোন বয়স পর্যন্ত যুবলীগ করা যাবে, সেসব আলোচনা রোববারই (২০ অক্টোবর) করা হবে।’

শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাজধানীর বনানীতে বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে তার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো শেষে গণভবনে যুবলীগের বৈঠক সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

রোববার যুবলীগ নিয়ে বসছেন, সেখানে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী থাকতে পারবেন না। তাহলে কি তিনি অপসারিত হয়েছেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, গণভবনে এই মিটিং ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে কাকে ডাকবেন আর কাকে ডাকবেন না সেটা প্রধানমন্ত্রীর বিষয়। এটা পার্টি অফিসে ডাকা হলে আমি বলতে পারতাম। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যুবলীগকে গণভবনে ডেকেছেন। সেখান থেকে যাদের বলা হয়েছে, তারাই মিটিংয়ে যাবেন।

বিএনপি সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির অভিযোগ নামক একটি রোগ আছে। এই রোগ বিএনপিকে পেয়ে বসেছে। তারা কথায় কথায় অভিযোগ করে, নালিশ করে। এছাড়া তো তাদের আর কিছু করার নেই। অভিযোগ আর নালিশের রাজনীতি বাদ দিয়ে তারা গণরাজনীতির ধারায় ফিরে আসুক, সেটাই আশা করি।

কাদের বলেন, বিএনপি দায়িত্বশীল বিরোধীদল হিসেবে দায়িত্বজ্ঞানহীন সব কর্মকাণ্ডই করছে। নির্বাচন ও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে এখন ইস্যু খুঁজে বেড়াচ্ছে। কোনো একটা ইস্যু পেলেই তারা তার মধ্যে রাজনীতি দেখে।

তিনি বলেন, নিরাপদ সড়ক, কোটা সংস্কার আন্দোলন- একটা পেলেই তারা ধরে বসে। আবরার হত্যাকাণ্ডে তারা ইস্যু খোঁজার চেষ্টা করেছিল। তাদের ইস্যু খুঁজে পাওয়ার রাজনীতিতে জনগণ সাড়া দেয় না। বাংলাদেশের রাজনীতিতে অবজেক্টিভ কোনো ইস্যু নেই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডে কোনো নারী বা অবলা শিশুকে টার্গেট করা হয় না। কিন্তু বাংলাদেশে সব রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডে নারী-শিশু হত্যা করা হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সময় ১০ বছরের অবুঝ শিশু রাসেলকেও হত্যা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *