জাতীয় নয়, আওয়ামী অর্থনীতি প্রণীত হয়েছে: আমীর খসরু

রাজনীতি

Sharing is caring!

দেশে জাতীয় অর্থনীতির পরিবর্তে আওয়ামী অর্থনীতি প্রণীত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘দেশের অর্থনীতিতে পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে, কোনো সাধারণ মানুষের ব্যবসা করার সুযোগ নেই। কোনো সাধারণ মানুষের চাকরি পাওয়ার সুযোগ নেই। জাতীয় অর্থনীতি পরিপূর্ণভাবে আওয়ামী অর্থনীতিতে পরিণত হয়েছে। দেশে একটি দলীয় অর্থনীতি প্রণীত হয়েছে।’

শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। আবরার হত্যার প্রতিবাদে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিইএব) এ মানববন্ধন আয়োজন করে।

প্রতিবছর হাজার হাজার কোটি টাকা বাইরে চলে যাচ্ছে উল্লেখ করে আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘এ টাকার বড় অংশ হচ্ছে দুর্নীতির টাকা। আর ছোট্ট একটি অংশ হচ্ছে যারা বাংলাদেশে ব্যবসা করে, তাদের টাকা। কারণ, লুটপাটের কারণে এ দেশে ব্যবসা করার আর কোনো সুযোগ নেই। নিরুপায় হয়ে তারা তাদের টাকা বিদেশে পাচার করে দিচ্ছে।’

খসরু বলেন, ‘অবৈধ সরকার ,অবৈধ সংসদ যখন দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেয়, তখন ক্যাসিনো, চাঁদাবাজ, বিদেশে টাকা পাচার, গুম-খুন, মেধাবী ছাত্রকে হত্যা— কোনো কিছুর বিচার আশা করা যায় না। এর আগে এরকম হত্যাকাণ্ডের যেই রায়গুলো দেওয়া হয়েছে, সকলেই খালাস পেয়ে গেছে।’

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান প্রসঙ্গে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ‘গডফাদার ছবি দেখেছেন? এতে নিজেদের মধ্যে, পরিবারের মধ্যে যখন ভাগবাটোয়ারা নিয়ে সমস্যা হয়, তখন একজন আরেকজনকে গুলি করে মেরে ফেলে।’

‘আসল ঘটনা হচ্ছে— এখানে এত বড় অঙ্কের লেনদেন, এগুলো সাধারণ মানুষ কল্পনাও করতে পারে না। এই লেনদেনের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা সমস্যা হয়ে যায়। যখন সমস্যা হয়ে যায়, তখন একজন আরেকজনকে মেরে ফেলে। এখানে একজন আরেকজনকে ধরিয়ে দিচ্ছে। যারা ধরিয়ে দিচ্ছে তারা তো জানে কে কোথায় কী করছে। এসব অভিযানে বাংলাদেশের যে দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়নের চিত্র ফুটে উঠেছে, সেটা লাখ লাখ অভিযানেও শেষ হবে না,’— বলেন বিএনপির এই নীতিনির্ধারক।

তিনি বলেন, ‘যারা অন্যায় অবিচার করছেন তাদের জন্য মাঠ খোলা আছে। কারণ যেই দেশে ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত সবাই একই কাজে ব্যাস্ত। তারা আবার অন্যের কাজে কিভাবে বাধা দেবে। বিশেষ করে একটি অনির্বাচিত সরকার যেখানে দেশ পরিচালনা করে, একটি অনির্বাচিত সংসদ যেখানে আইন পরিচালনা করে, সেখানে ভালো কিছু আশা করা যায় না।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির সহ-তথ্য বিষয়ক সম্পাদক সাংবাদিক নেতা কাদের গনি চৌধুরী, কৃষক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনসহ অন্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *