পাঁচ বছরে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়বে ৫০ শতাংশ

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা (আইইএ) তাদের এক পূর্বাভাসে জানিয়েছে আগামী পাঁচ বছরে বিশ্বজুড়ে নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে উৎপাদিত শক্তির পরিমাণ ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।

আইইএ জানায়, নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার প্রত্যাশার চেয়েও বেশি হচ্ছে। সৌর, বায়ু ও জলবিদ্যুতের বিভিন্ন প্রকল্প আশাতীতভাবে বাড়ছে। ২০২৪ সাল নাগাদ বিশ্বে সৌর প্রকল্প থেকে উৎপাদিত বিদ্যুতের পরিমাণ হবে ৬ শ গিগাওয়াটস (০.৬ টেরাওয়াটস) । এই সময়ে বিশ্বজুড়ে নবায়নযোগ্য জ্বালানির সকল উৎস থেকে উৎপাদিত বিদ্যুতের পরিমাণ হবে ১২ শ গিগাওয়াটস (১.২ টেরাওয়াটস) । নবায়নযোগ্য জ্বালানির বিপুল ব্যবহারের ফলে বিশ্বজুড়ে তেল, কয়লা ও গ্যাসের ব্যবহার কমবে বলে আশা করা যায়।

আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ফাতিহ বিরল বলেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য আগামী ৫ বছর গুরুত্বপূর্ণ সময়। জলবায়ু বিষয়ে বিশ্ব যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে তাতে পৌঁছতে হলে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার আরও বাড়াতে হবে।

আইএ জানায়, বিশ্বজুড়ে বাসা-বাড়িতে সৌর প্যানেলের ব্যবহার বাড়ছে। বিশ্বে বিদ্যুৎ চাহিদার ২৬ শতাংশ পূরণ হয় নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎস থেকে। তবে ২০২৪ সাল নাগাদ ৩০ শতাংশ বিদ্যুতের চাহিদা নবায়নযোগ্য জ্বালানি শক্তির উৎস থেকে পূরণ। আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২৪ সাল নাগাদ সৌরশক্তি ব্যাবহারের ব্যয় আরও ১৫ থেকে ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত কমে যাবে।

নবায়নযোগ্য জ্বালানি হল এক অনিঃশেষ শক্তির উৎস যা বারবার ব্যবহার করা যায় এবং পরিবেশে কোনো বিরুপ প্রভাব পড়ে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *