গুণগত উন্নয়নের বিষয়ে কোন আলোচনা মিডিয়ায় প্রাধান্য পায়না, অভিযোগ নওফেলের

প্রচ্ছদ ভাইরাল মতামত

Sharing is caring!

দেশের গণমাধ্যম সরকারের নীতি নির্ধারনী বিষয় ও সুশাসনের বিষয়ে সুনিদৃষ্ট কোন ভূমিকা রাখতে পারছে না বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি বলেন আমাদের দেশে শুধু একটি বিষয়েই মূল রাজনীতি হয়। আর সেটি হলো ‘সরকার পতনের আন্দোলন ‘।

সরকারের উত্থান আর পতনের বাইরেও রাষ্ট্র, অর্থনীতি, সমাজ এসব বিষয়ে গুণগত উন্নয়নের বিষয়ে কোন আলোচনা মিডিয়ায় প্রাধান্য পায়না বলেও যোগ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, মিডিয়ায় আলোচনা হয় শুধু কেন বিরোধী দল সরকারি দলকে টেনে নামাতে পারছেনা আর কেন সরকারী দল বিরোধী দলকে আক্রমণ করছে কিংবা করছে না এসব বিষয়ে।

এই বিষয়গুলোকে গণমাধ্যম ও রাজনীতির অপরিপক্কতা হিসেবে চিহ্নিত করেন নওফেল। সুষ্ঠভাবে রাষ্ট্র পরিচালনার স্বার্থে কথায় কথায় আন্দোলনের আলোচনা বাদ দিয়ে সমালোচনা, সংশোধন, পরিমার্জন আর উন্নয়নের আলোচনায় অংশ গ্রহন বাড়াতেও এসময় সবার প্রতি আহবান জানান নওফেল।

বৃহষ্পতিবার (২৪ অক্টোবর) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার ব্যক্তিগত পাতায় দেয়া এক স্ট্যাটাসে এসব বিষয়ে আলোচনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল। পাঠকদের সুবিধার্থে নওফেলের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো……

“প্রতিবেশী দেশ থেকে শুরু করে অনেক দেশেই গণমাধ্যমে আলোচনা সমালোচনা হয় সরকারের নীতি নির্ধারনী বিষয়, সুশাসন, ইত্যাদী নিয়ে, যেখানে বিরোধী রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজ, সরকার দলীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিরা অংশগ্রহণ করেন বা বিশ্লেষণ করেন। আমাদের দেশে দেখি প্রায় প্রতিদিনই শুধু একটি বিষয়েই মূল রাজনীতি হয়, “সরকার পতনের আন্দোলন”। আজও একটি জাতীয় দৈনিকে দেখলাম শিরোনাম, পতনের “আন্দোলন” ঘিরে। সরকার দলের উত্থান আর পতনের বাইরেও রাষ্ট্র, অর্থনীতি, সমাজ, এগুলোই যে রাষ্ট্রের রাজনীতির মূল ব্যাপার, এই গুনগত আলোচনার কোনো বিষয় আজকাল প্রাধান্য পায়না। কেনো বিরোধী দল সরকারী দলকে টেনে নামাতে পারছেনা, আর কেনো সরকারী দল বিরোধী কে আক্রমণ করছে বা করছেনা, এগুলোই শুধু আলোচনা। এটি গণমাধ্যমের যেমনি অপরিপক্কতা তেমনি রাজনীতিরও অপরিপক্কতা। বিষয়টি এমন, সকালে ঘুম থেকে উঠে একটি চিন্তাই শুধু মাথায় থাকবে, কখন আবার ঘুমাতে যাবো! এর বাইরে দিন বিকেল সন্ধায় আর কোনো চিন্তার দরকার নাই! আসুন সুষ্ঠুভাবে রাষ্ট্র পরিচালনায় কথায় কথায় আন্দোলনের আলোচনা বাদ দিয়ে সমালোচনা সংশোধন পরিমার্জন আর উন্নয়নের আলোচনাটাও আমরা করি। আন্দোলন আকাশ থেকে পয়দা হয়না। জনগন না চাইলে কোনো সরকার টিকতে পারেনা। এই সরকার জনগণকে যা দিচ্ছে এতে জনগণ আশাবাদী। জনগণ আরো চায়, অবশ্যই চাইবে, কিন্তু তারা এই সরকারের পতন চায়না। তারা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার সরকারের সহযোগিতায় নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন চায়।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *