প্যারিস জলবায়ু জোট থেকে সরে দাঁড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করা প্যারিস জলবায়ু জোট (প্যারিস ক্লাইমেট অ্যাকর্ড) থেকে চূড়ান্তভাবে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বুধবার (২৩ অক্টোবর) পিটসবার্গে অনুষ্ঠিত এক জ্বালানি সম্মেলনে এ কথা জানান। খবর বিবিসির।

এই জোটের অধীনে করা চুক্তিটিকে বাজে চুক্তি উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেন, তার সরকারের নেওয়া জীবাশ্ম জ্বালানি নীতির কারণে জ্বালানি খাতে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বে ‘সুপারপাওয়ার’ হতে পেরেছে। এই চুক্তিতে যেহেতু যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে কোনো কিছু সংযোজন করতে পারছে না, তাই তারা সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পিটসবার্গের ওই বক্তৃতায় বারাক ওবামা সরকারের নেওয়া এনভায়রনমেন্টাল ক্লিন আপ নীতিকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জ্বালানি খাতে যুদ্ধ ঘোষণার সাথে তুলনা করেছেন।

এদিকে, কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে জলবায়ু জোট থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে পরবর্তীতে নতুন কোনো মোড় আসার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

এর আগে, ২০১৮ সালের নভেম্বরের ৪ তারিখ থেকেই প্যারিস জলবায়ু জোট থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। তার এক বছরের মাথায় ২০২০ সালের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে ডোনাল্ড ট্রাম্প এই ঘোষণা দিলেন। বিশ্লেষকরা এই নির্বাচনে ট্রাম্পের নির্বাচিত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা দেখছেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৫ দেশকে সাথে নিয়ে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি যাত্রা শুরু করেছিল। ওই চুক্তির অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল ২০ বছরের মধ্য যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণের হার ২৮ শতাংশ কমিয়ে আনা। এর টাইমলাইন নির্ধান করা হয়েছিল ২০০৫ থেকে ২০২৫।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *