জেল হত্যা দিবসে সরকারি ছুটির দাবি সোহেল তাজের

প্রচ্ছদ ভাইরাল মতামত

Sharing is caring!

জেল হত্যা দিবস রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে ৩ নভেম্বরকে সরকারি ছুটির দিন ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছেন স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমদের ছেলে সোহেল তাজ।

একই সাথে স্কুল, কলেজের পাঠ্যসূচিতে এই চার নেতার (সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, মনসুর আলী, এ এইচ এম কামরুজ্জামান) পৃথক এবং বিস্তারিত জীবনী ও অবদান তুলে ধরার আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক এই স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

রোববার সকালে জেল হত্যা দিবসে জাতীয় চার নেতাকে স্মরণ করে এবং বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় তাদের অবদানের নানা দিক তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি এ দাবি জানান।

ফেসবুকে দেয়া পোস্টে তিনি লিখেছেন: ‘‘তেসরা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে সরকারি ছুটির দিন ঘোষণা করা এবং স্কুল/কলেজ এর পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করার আহ্বান।

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী জাতীয় চার নেতার সার্বিক অবদান- ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ছয় দফা, গণ অভ্যুথান, সত্তরের নির্বাচন এবং মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন স্বাধীনতা- আগামী প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা যোগাবে। স্কুল/কলেজ এর পাঠ্যসূচিতে এই চার নেতার (সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, মনসুর আলী, এ এইচ এম কামরুজ্জামান) পৃথক এবং বিস্তারিত জীবনী ও অবদান তুলে ধরতে হবে যাতে করে নতুন প্রজন্ম জানতে পারে যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু তার সঙ্গে রেখেছিলেন যোগ্য ব্যক্তিদের যারা তাদের দক্ষতা, যোগ্যতা আর দেশপ্রেম দিয়ে অর্জন করেছিলেন বঙ্গবন্ধু এবং এ জাতির আস্থা। এই চার জাতীয় বীর ইতিহাসের শুধু ফুটনোট হতে পারে না কারণ তাদেরকে দিয়েই শুরু হয়েছে বাংলাদেশের ইতিহাস। তেসরা নভেম্বর জেল হত্যা দিবস রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে সরকারি ছুটির দিন ঘোষণা করে বঙ্গবন্ধু, জাতীয় চার নেতা এবং এই দিনের তাৎপর্য নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *