সামাজিক দূরত্ব বুঝাতে সন্দ্বীপের মেয়রের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

উত্তর চট্টগ্রাম প্রচ্ছদ বৃহত্তর চট্টগ্রাম

Sharing is caring!

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ পৌরসভায় ২৫০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেছেন পৌর মেয়র জাফর উল্লাহ টিটু। ২৫০ পরিবারকে পৌরসভা প্রাঙ্গণে ডেকে নিদৃষ্ট দুরত্বে দাড় করিয়ে এসব খাদ্য সহায়তা তুলে দেন তিনি। মেয়র বলছেন সামাজিক দুরত্বের বিষয়ে ধারণা দেয়ার জন্যই এই উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

রবিবার (৫ এপ্রিল) সকালে সন্দ্বীপ পৌরসভার সামনে খালি প্রাঙ্গনে তিন ফিট দুরত্বে বৃত্ত একে সেসব বৃত্তে সুবিধাভোগীদের দাড় করিয়ে খাদ্য সহায়তা তুলে দেন মেয়র। এসময় করোনার ভয়াবহতা ও সামাজিক দুরত্বের প্রয়োজনীয়তা নিয়েও সুবিধাভোগীদের সতর্ক করেন মেয়র।

পৌর মেয়র জাফর উল্লাহ টিটু বলেন, ‘প্রথম দফায় আমরা বেশ কিছু মানুষের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছি। ত্রান দেয়ার জন্য মানুষের বাড়িতে গিয়ে দেখি বাড়ির ভেতর উঠানে জটলা বেঁধে আড্ডা দিচ্ছে সাধারন মানুষজন। তখন আমার মনে হলো ত্রাণ পৌঁছানোর পাশাপাশি প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষের করোনা মোকাবেলায় সচেতন করা জরুরি।’

‘এটি যেহেতু গ্রাম এলাকা। এখানে একেক বাড়িতে অনেক লোকজন বাস করে। কোন কোন বাড়িতে শখানেক লোকও বাস করে। কাজেই বাড়িতে থাকাই যথেষ্ট নয় এদের ক্ষেত্রে।’ যোগ করেন মেয়র টিটু।

নিজের উদ্যোগের কথা ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘এরা বাড়িতে থাকলেও জনসমাগমের সুযোগ কিন্ত শেষ হয়ে যাচ্ছেনা। তাই আমার মনে হলো একই স্থানে অনেক মানুষ থাকলেও সামাজিক দুরত্ব কিভাবে নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে এদেরকে বার্তা দেয়া যায়। সচেতন করা যায়।’

‘সেজন্যই আমি এভাবে পৌর প্রাঙ্গনে সুবিধাভোগীদের ডেকেছি। তাদের ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি সামাজিক দুরত্ব আসলে কি এবং কিভাবে এটি নিশ্চিত করা যায়। পাশাপাশি এই দুরত্ব কেন প্রয়োজন তাও উনাদের বুঝিয়ে বলেছি। উনারা এই বিষয়ে সচেতন থাকার অঙ্গীকারও করেছেন আমার কাছে।’ বলেন পৌর মেয়র টিটু।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া এই খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় প্রত্যেকে চাল, ডাল, পিয়াজ, তেল , আলু সহ বেশ কিছু প্রয়োজনীয় সামগ্রী পেয়েছে বলে নিশ্চিত করেন মেয়র।

Leave a Reply