করোনাকালীন ফিল্ম ‘এন আইসোলেটেড সোল’

বিনোদন

Sharing is caring!

স্কুল বন্ধ। হাতের রিমোট টিভি পর্দার কার্টুনের চ্যানেল ঘুরিয়ে দিলেই ভেসে আসে মৃত্যুপুরীর খবর। বাবার চায়ের পেয়ালা দিয়ে চেপে রাখা সেই পত্রিকা ছেপেছে ওই একই ছবি। হাসপাতালের সামনে চিকিৎসার জন্য ধুঁকে ধুঁকে মরার ছবি। এক বিভৎস সেই ছবি, মৃত্যুর চেয়েও ভয়ঙ্কর! এভাবেই শিশুর কোমল স্মৃতিতে আঁচর কেটে যাচ্ছে করোনা ভাইরাস।

এমন মহামারি কেটে যাওয়ার পর নিজেদের শৈশব নিয়ে আজকের শিশুদের ভাবনা কেমন হবে- এমন গল্প নিয়েই তৈরী হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন মিনিটের শর্ট ফিল্ম ‘এন আইশোলেটেড সোল’।

এই ফিল্মের পরিচালক ইয়াসির রাফা জানান, ‘এন আইসোলেটেড সোল’ ফিল্মটি বিছন্নতার গল্প — যে বিছন্নতা আমাদের ভাবনাকে নিয়ে যায় প্রিয় রুপকথার গল্পে ভরা শৈশবে। অথচ আজকের শিশুদের কি এমন কোন শৈশব আছে? কখনো যদি তাদের জীবনেও এমন সংকটময় সময় আসে তখন তারা কোথায় ফিরে যেতে চাইবে তা আমাকে ভাবায়!

ফিল্মটিতে অন্যদিকে অঙ্কিত হয়েছে ভয় নিয়ে কেটে যাওয়া দিনগুলোর নির্মমতার দৃশ্য। সূর্য ডুবতেই সন্ধ্যা আসে। থমথমে হয়ে আসে পুরো শহর। যেন রুপকথার গল্পের সেই সিন্দাবাদের ভূত। রাতে দুই চোখ এক হতেই নেমে আসে ভয়। ফের সূর্যের আলো দেখতে না পাওয়ার ভয় আর ভোরের আলোতে দুই চোখ ছোঁয়াতে না পারার ভয়। সব মিলিয়ে করোনা কাণ্ডে কর্মহীন হয়ে পড়া এক তরুণের কাহিনী। শুধু প্রাণ নয়, করোনা গ্রাস করেছে বেঁচে থাকা প্রাণের মন। সেই মনে ক্ষীণ হয়ে এসেছে সাহস। যেন বেঁচে থাকার যুদ্ধে ভয় নিয়ে কাটছে প্রতিটি ক্ষণ। এই চিন্তা খিটখিটে করে তুলেছে মেজাজ। – এই বুঝি বেঁচে থাকার এক বিষাক্ত প্রলোভন!

ফিল্মের অভিনেতা ওয়াসিম আহমেদ জানান, করোনায় ব্যস্ত এক তরুণ আটকা পড়েছে শহুরে বাসায়। নিজে রান্না করে খেতে হয় ছেলেটির। একা-একাকীত্ব, চারপাশের মৃত্যর মিছিল তৈরি করেছে মানসিক অস্থিরতা আর প্রভাব পড়ে ছেলেটির জীবনেও। ফোনে কাছের মানুষগুলোর সাথে সহসায় বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পরে সে। তারপরও প্রশান্ত বিকালটাই ছোটকালে মধুর শৈশবের কথা মনে করে নস্টালজিয়া জাগে তার মনে। তবে এই প্রজন্ম, আজকের প্রজন্মকে যদি বিচ্ছিন্ন আত্মাশ ভর করে, তাহলে তারা কি ভাববে? কিসের নস্টালজিয়ায় নিজেকে হারাবে?

ফিল্মটির নির্মাতা ওমর ফারুক বলেন, ‘মানুষ সবসময় তার শৈশবে ফিরে যেতে চায়। বর্তমানে করোনাভাইরাসের এই সময় মানুষ ঘরবন্ধি হয়ে পড়েছে। মানুষ যখন একা থাকে তখন সে নস্টালজিক হয়ে যায়। আমাদের ছিলো সুন্দর এক শৈশব । এই অস্থির সময়ে আমরা ফিরে যাই আমাদের শৈশবে’।

সবাইকে ‘এন আইসোলেটেড সোল’ শর্ট ফিল্মটি দেখার আমন্ত্রণ জানিয়ে ওমর ফারুক বলেন, করোনার ঘরবন্দি সময়ে ফিল্মটি শিক্ষণীয় একটি গল্প। আশা করছি সবার ভাল লাগবে।

উল্লেখ্য, ফিল্মটি দেখা যাবে ‘Fade In’র ইউটিউব ও ফেইসবুক পেইজে।

ফিল্মটি দেখতে ক্লিক করুন – https://youtu.be/GZFxnxlSX9E

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *