৫ হাজার ছাড়ালো চট্টগ্রামের করোনা রোগী

উত্তর চট্টগ্রাম দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রচ্ছদ বৃহত্তর চট্টগ্রাম

Sharing is caring!

শনিবার নতুন করে আরও ২৬৯ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়ে গেল। নতুন করে শনাক্ত হওয়া এই ২৬৯ জনের মধ্যে ২০৮ জন নগরের ও ৬১ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

শনিবার (১৩ জুন) কক্সবাজারের ১টি ও চট্টগ্রামের ৫টি ল্যাবে হওয়া ৮৫৬টি নমুনা পরীক্ষায় এসব ফলাফল পাওয়ার কথা জানিয়েছে সিভিল সার্জন কার্যালয়।

এই সময়ের মধ্যে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তের মধ্যে মারা গেছেন আরও ৬ জন। ফলে চট্টগ্রামে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৭ জন। অন্যদিকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪০ জন। তাতে করে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ৩৭১ জনে।

সিভিল সার্জনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী শনিবার (১৩ জুন) চট্টগ্রামে সবচেয়ে বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের ল্যাবে। সেখানে ৩০৪টি নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ ১১১ জন। যার মধ্যে ১০৭ জন নগরের ও বাকি ৪ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। একই দিনে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ২৩২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয় ৪১ জনের। যার মধ্যে ২২ জন নগরের ও ১৯ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪৫ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে, যাদের ২২ জন নগরের ও ২৩ জন বিভিন্ন উপজেলার। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ২৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৪ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়। যাদের ১ জন নগরের ও ১৩ জন বিভিন্ন উপজেলার।

অন্যদিকে বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১২৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ পাওয়া গেছে ৫৬ জন। যাদের সকলেই নগরের। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে ১২ নমুনা পরীক্ষায় ২ করোনা রোগী শনাক্ত হয়।

বিভিন্ন উপজেলায় শনাক্ত ৬১ জনের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৪ জন হাটহাজারীর। এছাড়া ১০ জন করে রয়েছে সীতাকুণ্ড, আনোয়ারা ও বোয়ালখালী উপজেলায়। রাউজানে ৭ জন, চন্দনাইশে ৪ জন, পটিয়ায় ৩ জন, লোহাগাড়ায় ২ জন এবং মিরসরাইয়ে ১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় সিভিল সার্জন অফিস।

রবিবার (১৪ জুন) সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন ডা সেখ ফজলে রাব্বী। তিনি জানান, ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে চট্টগ্রামে। একই সময়ের মধ্যে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪০ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *