রনিকে ‘হত্যার হুমকি দেওয়ায়’ ডা. ফয়সালকে বহিষ্কারের দাবি ছাত্রলীগের

রাজনীতি

Sharing is caring!

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুরুল আজিম রনিকে ‘হত্যার হুমকি দেওয়ায়’ চট্টগ্রাম বিএমএর সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক পদ থেকে ডা. ফয়সাল ইকবালকে বহিষ্কারের দাবি তুলেছে ছাত্রলীগ।

মঙ্গলবার (২৩ জুন) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ ও মহসীন কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এমন দাবি তোলেন বক্তারা। এ সময় ডা. ফয়সালের কল রেকর্ডটির বিষয়ে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহবান জানান বক্তারা।

সোমবার ফাঁস হওয়া ডা. ফয়সাল ইকবালের একটি ফোনালাপের রেকর্ডে নুরুল আজিম রনিকে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখার হুমকি দেয়ার জের ধরে এই মানববন্ধনের ডাক দেন ছাত্রলীগ নেতারা।

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিমের সভাপতিত্বে ও মহসীন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মামুন-পলাশের যৌথ সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য গাজী জাফরুল্লাহ, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাসান মনসুর, নগর যুবলীগের সদস্য নুরুল আনোয়ার, সাবেক ছাত্রনেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরী।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে আমরা চট্টগ্রামের বেহাল স্বাস্থ্যদশা নিয়ে প্রেসক্লাব সম্মুখে মানববন্ধন করে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। আমাদের আন্দোলন কখনো ডাক্তার সমাজের বিপক্ষে ছিল না। কতিপয় পেশাজীবি যারা চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য খাতকে ভিন্নখাতে পরিচালনা করে এ শহরে লাশের মিছিল বসিয়েছে তাদের রুখে দিয়ে মানুষের মৌলিক অধিকার চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করাই ছিল আমাদের আন্দোলনের মূল উদ্দেশ্য।

বক্তারা বলেন, আমাদের এই প্রতিবাদের কারণে এই আন্দোলনের প্রতিবাদী যোদ্ধা নুরুল আজিম রনি’র লাশ ফেলে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন পেশাজীবি চিকিৎসক নেতা ফয়সাল ইকবাল। একজন পেশাদার খুনী ছাড়া এভাবে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেয়া অন্য কারো পক্ষে সম্ভব নয়। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে ফয়সাল ইকবালের গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে আরও বলেন, চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য খাতকে জিম্মি করে ফয়সল ইকবাল তার স্বভাবসুলভ মাস্তানি প্রদর্শন করেছে। ছাত্র অবস্থাতেও তিনি একাধিক হত্যা মামলার আসামী ছিলেন। এছাড়াও, সরকারের নির্দেশ অমান্য করে বেসরকারি হাসপাতালগুলো বন্ধ রেখে এই করোনাকালে চট্টগ্রামবাসীকে অবর্ণনীয় কষ্ট দিয়েছে। আমরা তার এই ঘৃণ্য কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়েছিলাম বিধায় আজ সে রনিকে হত্যার হুমকি দিল। কাল আমাকে দিবে। আমরা আইনশৃংখলা বাহিনীকে অনুরোধ জানাব, চট্টগ্রামের স্বাস্থ্যখাত ধ্বংশের এই কুশীলবকে অতি দ্রুত গ্রেফতার করুন।

সভাপতির বক্তব্যে মাহমুদুল করিম বলেন, বেসরকারি হাসপাতালের মালিকদের শেল্টার দিয়ে চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে ফয়সাল ইকবাল এই করোনাকালে চট্টগ্রামের শতাধিক মানুষকে বিনা চিকিৎসায় হত্যা করেছে। তার এই মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় আজ সাহসী ছাত্রনেতা নুরুল আজিম রনিকে হত্যার হুমকি এসেছে।

চট্টগ্রাম কলেজ সভাপতি আরও বলেন, নুরুল আজিম রনির অপরাধ সে জনগণের পাশে থেকে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে চেয়েছিল। এই মহামারিতে জনগণকে বাঁচাতে ১০০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার করেছে। যেখানে বিনামূল্যে করোনা রোগীদের চিকিৎসা হচ্ছে। এতে তাদের ব্যবসায়িক ক্ষতি হচ্ছে। তাই ফয়সাল ইকবাল সিন্ডিকেট রনি’কে হত্যার মিশনে নেমেছে। আমরা চট্টগ্রামের ছাত্র সমাজ এই প্রেসক্লাব থেকে পরিষ্কার ভাষায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে বলতে চাই, অতি দ্রুত চট্টগ্রামের চিকিৎসা খাত জিম্মিকারী ফয়সাল ইকবালকে গ্রেফতার করে জনগণের মৌলিক অধিকার চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করুন।

উপস্থিতিদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাদিম উদ্দীন, আশেকানে ডিগ্রী কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস আমিনুল করিম, নগর ছাত্রলীগের সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা খুরশেদ আলম, মো আরিফ, তানভীর মেহেদী মাসুদ, শিহাব আলী চৌধুরী, জাহিদ হাসান সায়মন, নোমান চৌধুরী রাকিন, আরাফাত, মেহেদী হাসান ফয়সাল প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *