ঈদের আগে শিল্পাঞ্চলে অসন্তোষের পূর্বাভাস

জাতীয়

Sharing is caring!

ঢাকা : বাংলাদেশের তৈরী পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বেতন বোনাসের দাবীতে এবারও ঈদের আগে শিল্পাঞ্চলে অসন্তোষ দেখা দিতে পারে বলে আগাম সতর্কতবার্তা দিয়েছে শিল্পাঞ্চল পুলিশ। তবে পোশাক প্রস্তুতকারী ও রপ্তানীকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ এ নিয়ে তেমন একটা শঙ্কিত নয়।

দেশের  শিল্প অধ্যুষিত অঞ্চল আশুলিয়া, গাজীপুর, নারায়নগঞ্জ, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও খুলনায় সাড়ে সাত হাজারের বেশি শিল্প-কারখানা রয়েছে। এর মধ্যে কেবল তৈরি পোশাক কারখানা রয়েছে প্রায় তিন হাজার। আর পোশাক খাতের ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ বস্ত্র কারখানা রয়েছে চার শ’র মতো। এদের মধ্যে প্রায় আট শ’ পোশাক কারখানা ঈদের আগে তাদের শ্রমিকদের বেতন-বানাস পরিশোধ করতে পারবে না বলে ধারনা করছে শিল্প পুলিশ। এ ছাড়া বোনাস দিতে পারবে না এমন আরো আড়াই শ’র মতো কারখানা রয়েছে  আন্যান্য  খাতে।

এ প্রসঙ্গে জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন রেডিও তেহরানকে বলেন, শ্রমিকরা করোনা পরিস্থিতির কারণে দারুন সংকটে আছেন। এ অবস্থায় কারখানা মালিকরা ঈদের আগে শ্রমিকদের  বেতন-বোনাস পরিশোধের ব্যাপারে টালবাহানা শুরু করেছে। মিথ্যা ওজর এবং চাতুরীর আশ্রয় নিচ্ছে। শ্রমিকরা তাদের চালাকি মেনে নেবে না।

এদিকে কারখানা মালিকদের অনেকে দাবী করছেন, মালিকদের এ আর্থিক সংকটের কথা বুঝতে পেরেছে শ্রমিকরাও এবং সে কারণে বড় রকমের কোনো অসন্তোষ দেখা দেবে না।

মালিকদের এমন বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন বলেছেন, ঈদের আগে যদি শ্রমিকদের ন্যায্য বেতন ও বোনাস পরিশোধ করা না হয় তাহলে তারা দাবী আদায়ের জন্য রাস্তায় নামতেও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।এদিকে বিজিএমইএ-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, করোনা পরিস্থিতিতে বিদেশী ক্রয়াদেশ কম থাকা ও র্অথায়ন সংকটের কারণে বেতন বোনাস পরিশোধে সংকটে রয়েছে এমন ১১৭টি কারখানা তারা শনাক্ত করেছে।

অনেক কারখানা এখনো জুন মাসের বেতন পরিশোধ করতে পারেনি স্বীকার করে বিকেএসইএ’র সহসভাপতি মোহাম্মদ হাতেম গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শ্রমিকদের বেতন পরিশোধে সমস্যা হচ্ছে কারণ, জুলাই-আগস্ট-সেপ্টেম্বরের মজুরি পরিশোধের জন্য সরকারের প্রতিশ্রুত  প্রনোদনা প্যাকেজের আবেদন করেও সহায়তা পাওয়া যায় নি।

এ প্রসঙ্গে শিল্প পুলিশের মহাপরিচালক অতিরিক্ত আইজিপি আবদুস সালাম বলেছেন, বিজিএমইএ সহ অন্য খাতের শিল্প মালিকদের সাথে তারা আলোচনা শুরু করেছেন যাতে শ্রমিকরা তাদের বেতন-বোনাস নিয়ে হাসিমুখে ঈদ উদযাপন করতে পারে। সূত্র : পার্সটুডে

এএ/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *