সাহেদকে নিয়ে গভীর রাতে ডিবির অভিযান, মিলল অস্ত্র-মাদক

সারাদেশ

Sharing is caring!

করোনা টেস্টের নামে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিমকে নিয়ে গভীর রাতে অভিযান চালানো হয়েছে। রাজধানীর উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের সোনারগাঁও জনপদ রোডের ৬২ নম্বর বাসার সামনে শনিবার দিবাগত রাতে অভিযান চালায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবি। অভিযানে বিদেশি মদ, ফেন্সিডিল ও একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় দুটি মামলা হয়েছে।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তপন চন্দ্র সাহা বলেন, মধ্যরাতে ডিবি সাহেদকে নিয়ে অভিযান চালিয়েছে। এসময় বিভিন্ন মাদক ও পিস্তল উদ্ধার হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে- ৫ বোতল বিদেশি মদ, ১০ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি পিস্তল ও এক রাউন্ডগুলি। এই ঘটনায় সাহেদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দুটি মামলা হয়েছে। এ নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় সাহেদকে নিয়ে সাতটি মামলা হলো।

গত ৬ জুলাই রাজধানীর উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায় র‌্যাব। করোনার দুর্যোগকালীন নমুনা সংগ্রহ করা হলেও টেস্ট না করে ফলাফল দেয়া, হাসপাতাল পরিচালনার সনদের মেয়াদ না থাকা বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যায়। পরের দিন হাসপাতালটির উত্তরা ও মিরপুরের দুটি শাখা সিলগালা এবং সাহেদসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে র‌্যাব।

মামলার পর সাহেদ ঢাকা থেকে পালিয়ে যায়। দেশের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান করে সবশেষ সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে দেশত্যাগের চেষ্টা করেন। বুধবার ভোরে ভারতে পালানোর প্রস্তুতির সময় সাহেদকে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে তাকে নিয়ে উত্তরায় তার অফিসে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল জাল টাকা জব্দ করা হয়। এই ঘটনায় সাহেদের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানা ও সাতক্ষীরায় পৃথক মামলা হয়।

এদিকে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে করা মামলাটি উত্তরা পশ্চিম থানা থেকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবিকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে সাহেদ ও রিজেন্টের এমডি মাসুদ পারভেজকে গ্রেপ্তারের পর ওইদিনই তাদেরকে ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে সাহেদ ও রিজেন্ট গ্রুপের এমডি পারভেজ ১০দিনের রিমান্ডে আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *