আমেরিকার বিরুদ্ধে প্রত্যাঘাত হানবে ইরান : সর্বোচ্চ নেতা

আন্তর্জাতিক

Sharing is caring!

ইরান : ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, ইরাকে লে. জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যাকাণ্ডের কথা ইরান কখনো ভুলবে না এবং নিঃসন্দেহে আমেরিকার বিরুদ্ধে প্রত্যাঘাত হানবে। তিনি গতকাল সন্ধ্যায় তেহরান সফররত ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজিমির সঙ্গে এক বৈঠকে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাক সরকারের আমন্ত্রণে দেশটি সফরে গেলে বাগদাদ বিমানবন্দরের কাছে ড্রোন হামলা চালিয়ে ইরানের কুদস ফোর্সের তৎকালীন কমান্ডার জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যা করে সন্ত্রাসী মার্কিন সেনারা। হামলায় ইরাকের জনপ্রিয় হাশদ আশ-শা’বি বাহিনীর উপপ্রধান আবু মাহদি আল-মুহান্দিসসহ দু’দেশের আরো কয়েকজন সেনা কর্মকর্তা নিহত হন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, “তারা আপনাদের রাষ্ট্রীয় অতিথিকে আপনাদেরই ভূমিতে হত্যা করেছে এবং দ্ব্যর্থহীনভাবে সে অপরাধের কথা স্বীকারও করেছে। এটি কোনো ছোটখাট বিষয় নয়।” তিনি ওই নৃশংস হত্যাকাণ্ডকে ইরাকে মার্কিন সেনা উপস্থিতির অন্যতম ফসল হিসেবে উল্লেখ করে এই উপস্থিতির অবসান ঘটানোর জন্য বাগদাদ সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

ইরানসহ বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার পর এই প্রথম আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী প্রথম কোনো বিদেশি অতিথির সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাৎ করলেন।

সাক্ষাতে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেন, তার দেশ কখনোও ইরাকের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে চায় না। তবে ইরান চায় ইরাক একটি সার্বভৌম, শক্তিশালী ও সম্মানিত দেশে পরিণত হোক।তিনি বলেন, কিন্তু আমেরিকা ঠিক তার উল্টোটি চায় এবং সে চাওয়া বাস্তবায়ন করতেই ইরাকে সেনা মোতায়েন করে রেখেছে সাম্রাজ্যবাদী এই দেশটি।

সাক্ষাতে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী ইরানের সঙ্গে তার দেশের সম্পর্ককে বন্ধুপ্রতীম ও ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেন এবং মূল্যবান পরামর্শ ও দিক-নির্দেশনার জন্য আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীর প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

এএ/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *